ছি! ছি! চলন্ত সি এন জির ভিতর একটি ছেলে আর দুইটি মেয়ে মিলে কি করল ভিডিওতে দেখুন !! যা আপনি কখনো ভাবতেও পারবেননা

ছি! ছি! চলন্ত সি এন জির ভিতর একটি ছেলে আর দুইটি মেয়ে মিলে কি করল ভিডিওতে দেখুন !! যা আপনি কখনো ভাবতেও পারবেন  না

যেভাবে পাকিস্তানকে না হারিয়েও ফাইনালে যেতে পারে বাংলাদেশ!

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে হেরে কিছুটা কোণঠাসা পাকিস্তান। ফাইনালে উঠতে হলে বাকি সব ম্যাচই জিততে হবে তাদের। এশিয়া কাপের ৬ষ্ঠ ম্যাচে সোমবার সহজ প্রতিপক্ষ সংযুক্ত আরব আমিরাতের মুখোমুখি হচ্ছে শহিদ আফ্রিদির দল। মিরপুর শের-ই বাংলা স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

এদিকে এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টির প্রথম ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে আরব আমিরাতের বিপক্ষে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। ৫১ রানের বড় ব্যবধানের জয় তুলে নেয় স্বাগতিকরা। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টাইগাররা ২৩ রানের জয় পেয়ে ফাইনালে ওঠার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে গেছে মাশরাফি বাহিনী।

শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ থাকবে পাকিস্তান। রান রেট ভালো রেখে পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশ যদি হেরেও যায় দুই ম্যাচের জয় নিয়েই ফাইনালে ওঠা সম্ভব। সেক্ষেত্রে ভারতকে জিততে হবে চারটি ম্যাচেই। প্রথম দুটি ম্যাচে (বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে) দাপটের সঙ্গে জেতায় পরের ম্যাচগুলোতে স্বাভাবিকভাবেই টিম ইন্ডিয়াই ফেবারিট থাকছে।

অন্যদিকে, বাছাইপর্ব খেলে মূলপর্বে আসা আরব আমিরাতকে হারতে হবে সবগুলো ম্যাচেই। ইতিমধ্যে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হেরেছে তারা। সামনের দু’টি ম্যাচে তাদের সামনে কঠিন প্রতিপক্ষ পাকিস্তান ও ভারত। দুই ম্যাচের কোনোটিতে জয় তুলে নেয়া বেশ কঠিনই দলটির জন্য!

উপরের শর্ত অনুযায়ী ফলাফল হলে মহাগুরুত্বপূর্ন হয়ে উঠবে ৪ মার্চের পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি। শ্রীলঙ্কা জয় পেলে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের মধ্যে লড়াইটা হবে রান রেটের। যারা রান রেটে এগিয়ে থাকবে ভারতের সঙ্গে তারাই খেলবে ফাইনাল।

‘অনলাইনে যাচাই করে খবর প্রকাশ করতে হবে’

 তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, প্রতিদিনের সব ঘটনা খবর হয় না, অনলাইনে যাচাই-বাছাই করে খবর প্রকাশ করতে হবে।রবিবার দুপুরে অনলাইন সংবাদ মাধ্যম ‘দ্য রিপোর্ট’র ৩ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী একথা বলেন।মন্ত্রী বলেন, অনলাইন গণমাধ্যম জগতে নতুন ধারা সৃষ্টি করেছে। অনেকেই এর অস্তিত্ব নিয়ে সন্দিহান। কিন্তু আমি মনে করি, টিকে থাকার জন্য এসেছে, অবশ্যই টিকে থাকবে অনলাইন গণমাধ্যম।

তিনি বলেন, ‘অনলাইন পত্রিকা চালাতে এত জনবল লাগে, সে ধারণা ছিল না। সাধারণ পত্রিকার মতোই এখানেও অনেক বেশি জনবলের দরকার হয়। শুধুমাত্র কম্পিউটার থাকলেই অনলাইন পত্রিকা চালানো যায় না।’ইনু বলেন,‘ইতিহাস বিকৃতিকারী ও মিথ্যা রাজনৈতিক ব্যক্তিদের মুখোশ উন্মোচন করতে হবে। গণতন্ত্রের মধ্যে যেসব অপরাধী আছে তাদেরও মুখোশ খুলে দিতে গণমাধ্যমকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।’তিনি বলেন, ‘অনেকে বিভিন্ন নামে অনলাইন চালানোর চেষ্টা করছেন। এতে বহু সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন তারা; আমরাও হচ্ছি। কার্যক্রম সূচারুভাবে সম্পন্ন করতে সরকার একটি নীতিমালা করে দেবে।’অনুষ্ঠানে দ্য রিপোর্ট সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম মিন্টু, নির্বাহী সম্পাদক আমিরুল ইসলাম নয়ন, বার্তা সম্পাদক আবু সুফিয়ান, সহকারী বার্তা সম্পাদক সোহেল রহমান, প্রধান প্রতিবেদক নূরুজ্জামান তামিম, ইউনাইটেড মিডিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান কাজী ফরিদউদ্দীন আহমেদ এফসিএ, কোম্পানি সচিব মুশফিকুর রহমান, উপদেষ্টা এ কে এম আশরাফুল হক, পরিচালক আহসান কবির, রেজাউল হক, প্রাইম ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোশাররফ হোসেন এফসিএ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যার সঙ্গে এক্স করার ইচ্ছা প্রকাশ্যেই জানালেন বিদ্যা বালান !!

পা’ ছবিতে বিগ বি অমিতাভ বচ্চনের মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন বিদ্যা বালান। চরিত্রটি করে ব্যাপক আলোচনায় চলে এসেছিলেন এ অভিনেত্রী। এমনকি অমিতাভও তার অভিনয়ের ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন। এদিকে এ ছবির পর আবারও একটি ছবিতে একসঙ্গে দেখা যাবে অমিতাভ ও বিদ্যাকে। সুজয় ঘোষ পরিচালিত ‘টিই৩এন’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করছেন এ দুই তারকা। এ ছবির বেশির ভাগ দৃশ্যের শুটিং হয়েছে কলকাতায়। তবে এ ছবিটি করতে গিয়ে বিগ বি’র প্রেমেই পড়ে গেছেন বিদ্যা। সব সময়ই এ অভিনেতার বড় ভক্ত ছিলেন তিনি। এ ছবিতে অমিতাভের অভিনয় খুব কাছ থেকে দেখেই অভিভূত বিদ্যা।

এখানেই শেষ নয়, সমপ্রতি এ ছবি নিয়ে একটি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে অমিতাভের সঙ্গে রোমান্স বা সেক্স করার বাসনার কথা জানিয়েছেন বিদ্যা। আর এ বক্তব্যের মাধ্যমে নতুন করে আলোচনায় চলে এসেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এ গুণী অভিনেত্রী।

এ সাক্ষাৎকারে বিদ্যা বালান বলেন, আগে থেকেই আমি বিগ বির ভক্ত। তার আরও ভক্ত বনে যাই ‘পা’ ছবিতে একসঙ্গে কাজ করে। এমনকি ছবির সময় তার অভিনয় দেখে নিজের চোখের পানিও চলে এসেছিল অজান্তেই। কিভাবে এত ভালো অভিনয় করা সম্ভব! এবার ‘টিই৩এন’ ছবিতে কাজ করছি তার সঙ্গে। এখানে অমিতাভ জি’র ব্যক্তিত্ব খুব কাছ থেকে দেখে আমি শিহরিত। বলতে পারেন আমি তার প্রেমেই পড়ে গেছি। এখন একটাই সাধ। তার সঙ্গে রোমান্সের। বাস্তব জীবনে তো সেটা সম্ভব না। তাই আশা করবো সামনে পর্দায় অন্তত যেন তার সঙ্গে রোমান্স করতে পারি। এমনকি অন্তরঙ্গ রোমান্স !! এটা আমার স্বপ্ন

বিয়ের আগে মেয়েরা দৈহিক সম্পর্ক করার জন্য পাগল হয় যে ১০ টি কারণে!!দেখুন..

ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট সিন্ডি মেস্টন এবং ইভোল্যুশনারি সাইকোলজিস্ট ডেভিড বাস পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের ১০০৬ জন নারীর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন তাদের যৌন প্রেষণার বিষয়ে। আর মাত্র ১০০৬ জন নারীর কাছ থেকেই বেরিয়ে এসেছে যৌনতার ২৩৭ টি আলাদা আলাদা কারণ। যদিও অনেকগুলো কারণের ব্যাপারে প্রায় সবাই একমত, আবার অনেকগুলো কারণ কয়েকজনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। তো দেখা যাক, কারণ গুলো কী কী? মেস্টন ও বাস নারীদের যৌন-প্রেষণা গুলোকে স্বাভাবিকভাবেই তিন ক্যাটাগরিতে বিভক্ত করেছেন: শারিরীক, আবেগীয় এবং বস্তুবাদী কারণ। প্রেষণার মধ্যে যেমন রয়েছে, নিজের আত্মবিশ্বাস বাড়ানো, সেল্ফ এস্টিম বৃদ্ধিকরা, প্রেমিককে ধরে রাখা, তেমনি রয়েছে জোর-জবরদস্তির শিকার হওয়া পর্যন্ত। বাস এবং মেস্টনকে প্রেষণার বিচিত্রতা অবাক করেছে। এর মধ্যে যেমন রয়েছে সম্পূর্ণ পরোপকারী উদ্দেশ্য, তেমনি সম্পূর্ণ বদ মতলব। যেমন, কাউকে এস. টি.ডি তে আক্রান্ত করা।

১. আনন্দ লাভের জন্য: অবভিয়াস! কিন্তু গবেষণার ফলাফল “মেয়েদের যৌনতা ভালবাসা তাড়িত, আর ছেলেদের যৌনতা ইন্দ্রিয়সুখ তাড়িত”, পশ্চিমা সমাজেপ্রচলিত এই মিথকে উড়িয়েদেয়। অর্ধেকেরও বেশি সংখ্যক নারীর কোন ধরণের রোমান্টিক রিলেশনশিপ না থাকা অবস্থায় শুধুইন্দ্রিয় সুখের জন্য সেক্স করতে আপত্তি নেই, বরং আগ্রহী। তবে কারো সাথে রোমান্টিক রিলেশনথাকা অবস্থায় ইন্দ্রিয় সুখের জন্য অন্য কারো সাথে সেক্স করার ব্যাপারে প্রায় ৮০ শতাংস নারীর ঘোরতর আপত্তি রয়েছে। অর্থাৎ সিঙ্গেল অবস্থায় রোমান্স বিহীন সেক্সে অনেকেই আগ্রহী হলেও পার্টনারের সাথে চিটিং কে তারা সমর্থন করেন না।

২. রোমান্স: এটাও অবভিয়াস। প্রেমে পড়লে আবেগতাড়িত হয়ে প্রেমলীলায় মত্ত হয়নি এরকমজুটি খুঁজে পাওয়া দুস্কর।

৩. পার্টনারকে ধরে রাখার জন্য: অনেক সময়ই নিজের আবেগের চেয়ে বড় হয়ে দাড়ায় পার্টনারকে ধরে রাখার প্রচেষ্টা। পার্টনারের আবেদনে সাড়া না দিলে সে ছেড়ে চলে যেতে পারে, এইধারণা থেকে অনেক সময়ই অনিচ্ছা সত্ত্বেও সাড়া দেয় ।

৪. অন্যের প্রেমিককে ছিনিয়ে আনার জন্য: অনেকে অন্য নারীর সাথে প্রকাশ্য রোমান্টিক সম্পর্ক থাকা সত্ত্বেও পুরুষদের আবেদনে সাড়া দেয় এই উদ্দেশ্যে যে পুরুষটি তার ‘পারফরমেন্সে সন্তুষ্টহয়ে’ বা অন্য কোন কারণে তার রোমান্টিক পার্টনারকে ত্যাগ করে নতুন নারীকে স্বীকৃতি দিবে। পুরুষাঙ্গ আকার বড় করার সহজ উপায়

৫. দায়িত্ববোধ হতে: অনেক নারীই তাদের সঙ্গীদের সকল ধরণের যৌন চাহিদা মেটানো দায়িত্ববলে মনে করে। সেক্ষেত্রে আবেগতাড়িত না হয়েও বা পার্টনার চলে যাওয়ার সম্ভাবণা না থাকাসত্ত্বেও সে দায়িত্ববোধ থেকে সাড়া দেয়।

৬. গৃহস্থলি কাজের বিনিময়ে: অনেক বদ টাইপের পুরুষরা নাকি সেক্স না করলে বাজার করুম না, ঘর রং করুম না, গৃহস্থালী আবর্জনা ফেলুম না এইসব বলে
পার্টনারদের ব্লাকমেইল করে।

৭. করুণা করে: মানসিকভাবে ভেঙে পড়া কোন পরিচিতজনকে সান্তনা দেয়ার জন্যও নাকি মহীয়সীরা সেক্স করে থাকে। ধাতু দূর্বলতা বা ধাতুর দোষ কি ও কেন হয় ?

৮. বদ মতলবে: পদোন্নতির জন্য, টাকার জন্য, উপহার পাওয়ার লোভে,পার্টনারের ওপর কোন কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে গোপন প্রতিশোধ হিসেবে, কোন শত্রুতার কারণে এস. টি. ডি ছড়ানোর উদ্দেশ্যে।

৯. ব্রেক-আপের জন্য: অনেকে পার্টনারের ক্লান্তি থাকা সত্ত্বেও জোড়-জবরদস্তি করে সেক্স করার জন্য, যেন পার্টনার বিরক্ত হয়ে ব্রেক-আপ করে। গর্ভবতী থাকাকালীন যৌনমিলন শরীরকে তাজা রাখে

১০. মেডিক্যাল সেক্স: মাথা ব্যাথা সহ আরো অনেক শারিরীক সমস্যার চিকিৎসা হিসেবেও নাকি অনেকে সেক্স করে থাকে।

নেশায় মগ্ন করে স্কুল ছাত্রীর দেহভোগের ভিডিও নেটে ছাড়ল লম্পট বন্ধুরা! (ভিডিওসহ)

মানুষ একা বাস করতে পারে না; এজন্য তার সঙ্গী বা বন্ধুর প্রয়োজন হয়। কারণ স্কুল কলেজে পড়তে হলে তো বন্ধু-বান্ধবীর দরকার হয়। কারণ একা একা তো আর আনন্দ করা যায় না। আমরা তো আনন্দ সবার সাথে অর্থ্যাৎ বন্ধু-বান্ধবীর সাথে ভাগাভাগি করে নিতে চাই। ভিডিও নিচেঃ

কারণ স্কুল কলেজে কমবেশি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকে। আর সেখানে ছেলেমেয়ের মধ্যে ততটা তফাৎ থাকে না। সবাই একসাথে আনন্দ-ফূর্তি করে।এটাই স্বাভাবিক্। আর এবার আপনাদের সামনে এমন একটি বিষয় তুলে ধরব যেখানে দেখবেন যুবতি ছাত্রীকে বন্ধুরা ছলে-বলে কৌশলে কিভাবে তার দেহভোগ করে।

আর সে বিষয়টি আমাদের সমাজে অহরহ ঘটছে। যার মূলে রয়েছে মা-বাবা ছেলেমেয়ের তেমন সময় দিতে পারে না। ঘটনাটি আপনারা আমাদের ভিডিওতে দেখতে পারবেন

ভিডিওঃ

সিএনজি অটোরিক্সার মিটারে কারসাজিতে যেমন করে হচ্ছে চুরি (ভিডিও সহ)

নভেম্বর থেকে সারা দেশে নতুন নির্ধারিত ভাড়ায় ঢাকায় সিএনজি অটোরিক্সা চলছে। নতুন নির্ধারিত নিয়ম অনুযায়ী প্রথম দুই কিলোমিটারে ভাড়া ৪০ টাকা, পরবর্তী প্রতি কিলোমিটারের ভাড়া ১২ টাকা এবং প্রতি এক মিনিট ওয়েটিং (যাত্রাবিরতি, যানজট ও সিগন্যাল)-এর জন্য দুই টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে বাস্তবতা সম্পূর্ণ ভিন্ন। কেউ কেউ মিটার মেনে চললেও অধিকাংশই মেনে চলেনা মিটার। আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় মিটারে চললেও মিটারে উঠছে অস্বাভাবিক ধরনের চার্জ। যে রাস্তা যেতে সাধারণত ১৫০/১৬০ টাকা লাগার কথা সেখানেই মিটারে উঠছে ২০০ টারার অধিক।
সম্প্রতি সিএনজি আটোরিক্সায় চড়ে এমন অভিযোগ তুলেছেন অনেকেই। তবে এর পুরো ঘটনাটাই ঘটছে মিটারের ভিতর। মিটারে কারসাজির মাধ্যমেই চলছে এই চুরি। দেখুন ভিডিওতে

ছাত্রের সঙ্গে হোটেলে রাত কাটিয়ে চাকরি হারালেন সুন্দরী এই শিক্ষিকা ! দেখুন,,,!

ছাত্রকে নিয়ে হোটেলে রাত কাটিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন এক নারী শিক্ষিকা। লন্ডনের  ব্রিস্টলের ডাউন্ড স্কুলের আইসিটির শিক্ষক ছিলেন ২৮ বছর বয়সী ওই নারী। ঘটনাটি ২০১৪ সালের হলেও এতদিন স্বপদে বহাল ছিলেন তিনি। প্রায় দেড় বছর পর বুধবার ওই শিক্ষিকাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

২০১৪ সালের ২৬ জুন। ওই দিন ডাউন্ড স্কুলে ছাত্রদের নাচের ক্লাস ছিল। রেবেকা লেসির (২৮) ক্লাসে সেদিন ১১জন ছাত্র উপস্থিত ছিল। ক্লাস শেষে সবাই চলে যাওয়ার পর এক ছাত্রকে নিয়ে তার হোটেলের রুমে যান রেবেকা  ওই ছাত্রের সঙ্গে সারা রাত কাটান। পরদিন ভোরে ওই ছাত্রকে গাড়িতে করে তার বাড়ির সামনে নামিয়ে দিয়ে যান। এই ঘটনা সবার চোখে পড়ে। এরপরই ঘটনাটি স্কুল কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।শুধু তাই নয়, নাচের ক্লাসে অন্য কম বয়সী ছাত্রদের সঙ্গে ওই শিক্ষিকাকে অন্তরঙ্গভাবে নাচতে দেখা গেছে। ছাত্ররা তার কোমরে হাত দিয়ে নেচেছে এমন অভিযোগও পাওয়া গেছে রেবেকার বিরুদ্ধে। তদন্তে ওই ছাত্রের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের কোনও অভিযোগ না পাওয়া গেলেও ওই ঘটনাকে অপ্রত্যাশিত বলেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। আর এই কারণেই তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। তবে রেবেকার দাবি, ছাত্ররা চলে যাওয়া সময় স্বাভাবিকভাবেই তাকে জড়িয়ে ধরেছে।

পানিই জীবন,, কিন্তু সেটা খাওয়ারও আছে গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম,, জেনে নিন..!

আমরা সবাই জানি পানিই জীবন। পানির জন্যই রয়েছে প্রাণ। এই পৃথিবীর তিন ভাগই তো পানি। আর এক ভাগ স্থল। শুধু পৃথিবীই বা কেন। আমাদের শরীরের ৭০ শতাংশ পানি। মস্তিষ্কের ক্ষেত্রেও তাই। সে সব না হয় হল। কিন্তু জানেন কী, পানিটাও নিয়ম করে পান করা উচিত। তাহলেই পাবেন উপকার। অন্যথায় পানি শরীরের ক্ষতিও করতে পারে। তাই এক ঝলকে জেনে নিন, পানি কীভাবে পান করা উচিত-

১) সকালবেলায় উঠে খালি পেটেই এক গ্লাস পানি খেয়ে নিন। কারণ, তার আগে বেশ কয়েক ঘণ্টা আপনার শরীরে পানি যায়নি। আপনি তো ঘুমিয়ে ছিলেন

২) আপনি রাস্তায় বেরোলেন, সঙ্গে অবশ্যই একটা পানির বোতল রাখুন। যাতে আপনার পানি পিপিসা পেলেই খেতে পারেন। আপনার শরীরে যেন পানির অভাব না হয়।

৩) যদি আপনি অফিসে চাকরি করেন। তাহলে আপনার টেবিলে বড় একটা পানির পাত্র রাখুন। অফিস ছাড়ার সময় পুরো পানিটাই যেন শেষ হয়ে যায়, এটা মাথায় রাখবেন।

৪) অনেক সময় শুধু পানি খেতে গেলে ভালো লাগে না। সেখানে তখন পানির মধ্যে একটু লেবুর রস ফেলে দিন। দেখবেন পানি খেতে সুস্বাদু লাগবে।

৫) খেতে বসার আধঘণ্টা আগে পানি খেয়ে নিন। খাওয়ার সময় বেশি পানি একেবারেই পান করবেন না। খুব ইচ্ছে করলে, এক আধ চুমুক বড়জোর।

পাত্রপক্ষের দাবি নগ্ন সেলফি, নইলে বিয়ে মুলতুবি

সোনাদানা নয়, দাবি একটা নগ্ন সেলফির৷ থানের হবু বর জিতেন্দ্র রামকৃষ্ণ এমনটাই দাবি করেছিলেন পাত্রীপক্ষের কাছে৷ শেষমেশ অবশ্য না সেলফি, না কানাকড়ি, পুলিশের হাতকড়া ওঠে পাত্র সমেত গোটা পরিবারের হাতে৷ ভারতীয় বেশ কিছু গণমাধ্যম এমন খবর প্রকাশ করেছে।৩৩ বছর বয়সী জিতেন্দ্রর বিয়ে ঠিক হয়েছিল তার বাড়ির কাছেই৷ বিয়ের কথা পাকা হওয়ার পর থেকেই পাত্রীর কাছে একটি সেলফির দাবি জানাতে থাকে জিতেন্দ্র৷ তবে তা যেমন তেমন সেলফি হলে চলবে না, হতে হবে নগ্ন সেলফি৷ পাত্রী কিছুতেই হবু বরের এ প্রস্তাবে রাজি না হলে অন্য পথ দেখেন জিতেন্দ্র৷
তখন ৩ লাখ পণের জন্য সে উঠেপড়ে লাগে৷ বারবার জিতেন্দ্র জানাতে থাকে, তার দাবি পূরণ হলে তবেই বিয়ে নইলে বিয়ে নয়৷ পাত্রপক্ষের এহেন ব্যবহারে যারপরনাই বিরক্ত পাত্রীপক্ষ বিয়েই ভন্ডুল করে দেন৷ শুধু তাই নয়, নগ্ন সেলফি এ পণ চাওয়ার কথা জানিয়ে তাঁরা ওই পাত্র ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগও করেন৷ জানা গিয়েছে, সেই অভিযোগের ভিত্তিতে জিতেন্দ্র সহ ওই পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতারও করেছে পুলিশ৷
কিন্তু কেন সব ছেড়ে নগ্ন সেলফির দাবি জানিয়ে চলেছিল জিতেন্দ্র? অভিজ্ঞমহলের মতে, এটি ছিল জিতেন্দ্রর পাতা ফাঁদ৷ বিয়ে ঠিক হওয়ার বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে আরও টাকা পণ হিসেবে আদায় করাই ছিল তার লক্ষ্য৷ সেলফি হাতে পেলেই সে ব্ল্যাকমেল শুরু করত বলেই মনে করছেন কেউ কেউ৷ কারও কারও মতে, এ বিকৃত মানসিকতারই পরিচয়৷ আজকের দিনেও বিবাহ নামক সামাজিক প্রতিষ্ঠানটি কোন অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছে, তাইই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে জিতেন্দ্র ও তার পরিবার৷

ফাঁকা বাড়িতে নগ্ন হয়ে ভিডিও বানাচ্ছে স্ত্রী,,ধরে ফেললেন স্বামী,,যা ছড়াল ইন্টারনেটে ! (ভিডিওসহ দেখুন)

স্বামী আসতে সব সময় দেরি করে।তাই ফাঁকা বাড়িতে সময় আর সুযোগ দুই হাতে পেয়েই অনলাইনে নগ্ন হয়ে ভিডিও বানাচ্ছে স্ত্রী।এমনটাই চলছিল, হঠাৎ বাড়িতে ঢুকে পড়লেন স্বামী। হাতে-নাতে ধরা।অর্ধনগ্ন অবস্থায় স্ত্রীকে ধরে ফেলেছেন স্বামী।

 

সামনে যে কম্পিউটারটি খোলা ছিল, তাতে দেখা যাচ্ছিল, অপ্রান্তে বসে রয়েছেন একব্যাক্তি, যিনি ওই মহিলার স্ট্রিপিং (একে একে দেহের সমস্ত কাপড় খুলে ফেলা) দেখছিলেন।পরে যানা যায় ওই ব্যক্তি আসলে মহিলার গ্রাহক।স্বামী বাড়িতে না থাকার সুযোগে মহিলা স্ট্রিপ করে অর্থ উপার্জন করতেন। একবার দুবার নয়, বহুবার এই কাজ করেছেন ওই মহিলা। এমনকি পর্ন সাইটগুলিতেও আপলোড করা হয়েছে স্ট্রিপিং ভিডিও।ঘটনার খবর পেয়ে পুলিস আসে এবং বাজেয়াপ্ত করে কম্পিউটার।গ্রেফতার করা হয় মহিলাকেও। সূএ ; আমাদের কন্ঠস্বর

ছি ছি ! দিন দুপুরে স্বামীর সাথে যা করলো স্ত্রী,, যা দেখে আপনি সয্য করতে পারবেন তো ? (ভিডিওটি)

ছি ছি ! দিন দুপুরে স্বামীর সাথে যা করলো স্ত্রী,, যা দেখে আপনি সয্য করতে পারবেন তো ? (ভিডিওটি)