ধর্ষণচেষ্টা : যুবককে নগ্ন করে পুরো শহর ঘোরানো হলো

ডেস্ক : ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে হাতেনাতে ধরা পড়ে এক যুবক। এরপরই শাস্তি হিসেবে নগ্ন করে সমস্ত শহরে ঘোরানো হয় তাকে। ঘটনাটি ঘটেছে আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে। নারী পুলিশ প্রথমে তাকে হাতকড়ার সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে ফেলে। তখনো তাকে নগ্ন অবস্থায় দেখা যায়। ভিড়ের মধ্যে একজন পুরুষ চিৎকার করে তাকে বলতে থাকে, পরেরবার তোমাকে হত্যা করা হবে।

এক নারী বলেন, কাপুরুষকে গাড়ির পেছনে বাঁধো। অনলাইনে পোস্ট করা সেই ভিডিওর ক্যাপশনে ছিল, ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টায় সমাজের মানুষ উচিত শিক্ষা দিয়েছে ধর্ষণকারীকে। আমরা পরবর্তীতে তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করি। আশা করি শিশুটি ন্যায়বিচার পাবে। কর্তৃপক্ষ তাকে কী ধরনের শাস্তি দিয়েছে সে সম্পর্কে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

প্রতিবেশির যৌনতার সময় শিত্কারের শব্দ রেকর্ড করে অনলাইন ছেড়ে দিয়েছে এক মহিলা, সেই ভিডিও দুনিয়ায় ঝড় তুলেছে (ভিডিওসহ)

ডেস্ক : প্রথম ধাক্কায় শুনে ভেবেছিলেন, কাউকে খুন করা হচ্ছে বুঝি! কিন্তু ভুল ভাঙে পরক্ষণেই। এ তো শিত্কারের শব্দ! তাঁর প্রতিবেশীর শিত্কারের শব্দ।

স্টেসি রিটজেন। বছর ৩৮-এর মহিলা। ল্যাপটপে কাজে মগ্ন ছিলেন। আচমকাই তাঁর কানে আসে তীব্র চিত্কার। প্রথমে ব্যাপারটা বুঝতে না পারলেও পরক্ষণেই গোটা বিষয়টা তাঁর কাছে পরিষ্কার হয়। কিন্তু, অন্যদের মতো টিভি সেটের আওয়াজ না বাড়িয়ে স্টেসি বরং প্রতিবেশীর শিত্কারের শব্দ বেশ তারিয়ে তারিয়েই উপভোগ করেন। এখানেই শেষ নয়…

নিজের মোবাইলে সেই আওয়াজ রেকর্ডও করেন স্টেসি। একবার নয়। তিনবার। এরপর সেই শিত্কারের শব্দ টুইটারে আপলোড করেন তিনি। মুহূর্তের মধ্যে তা ভাইরাল হয়ে যা

প্রিয়তমার কপালে আলতো চুমু বোঝাবে আপনাদের বন্ধন চিরদিনের

হ্যালোটুডে ডটকম: ‘শেষের কবিতায়’ লাবণ্যর উদ্দেশে অমিত রায় লিখেছিল, “চুমিয়া যেয়ো তুমি/আমার বনভূমি/দক্ষিণ-সাগরের সমীরণে”।

প্রেমের সম্পর্কে একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হল চুমু বা কিস। চুমুর মাধ্যমে বোঝা যায় প্রেমিক যুগলের মধ্যে সততা, বিশ্বস্ততা।

প্রেমের সম্পর্কে অজস্র কথা যা প্রকাশ করতে পারে না তা সহজ ভাবে বুঝিয়ে দিতে পারে একটি আলতো চুমু।

রাত পোহালেই আসছে সেই কাঙ্খিত দিন, প্রেমের দিন বা ভ্যালেন্টাইন্স ডে। তার আগের দিন অর্থ্যাত্ শনিবার প্রেমের সপ্তাহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দিন। কারণ এ দিন হল কিস ডে। প্রতি বছর ১৩ ফেব্রুয়ারি মহাসমারহে পালন করা হয় কিস ডে বা চুম্বন দিবস।

কিন্তু জানেন কী বিভিন্ন কায়দার চুমুর আছে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা? আসুন জেনে নিই কী সেই ব্যাখ্যা।

• কপালে আলতো চুমু সম্পর্কের গভীরতা এবং নির্ভরতা বোঝায়। আপনার কপালে প্রিয়জনের চুমু বুঝিয়ে দেয় তাঁর জীবনে আপনি কতটা মূল্যবান। আপনাকে সকল বিপদ থেকে রক্ষা করতে উনি বদ্ধপরিকর।

• কানে চুমু বোঝায় প্রেমের সম্পর্কে আপনি কতটা প্যাশনেট।

• ঘাড়ে চুমু খেলে বোঝায় প্রেমিক বা প্রেমিকা খুবই রোম্যান্টিক।

• গালে চুমু ইঙ্গিত দেয় বন্ধুত্বের।

• হাতের তালুতে চুমু বোঝায় আপনার পছন্দ।

• প্রিয়জনের পায়ের তালুতে আলতো চুমু প্রলুব্ধতাকে নির্দেশ করে।

• তেমনই কাঁধে খাওয়া চুমু বুঝিয়ে দেবে আপনার প্রিয়জনকে আপনি কতটা চান।

• সবচেয়ে প্যাশনেট ভঙ্গিমায় চুমু হল লিপ-টু-লিপ কিস বা ওষ্ঠ চুম্বন। প্রেমের সম্পর্কে অন্য উচ্চতায় পৌঁছে দেয় এই ভঙ্গিমায় খাওয়া চুমু। গভীর মানসিক একাত্মতাকে নির্দেশ করে এই চুমুর ভঙ্গিমা।

তাই জীবনের সমস্ত বিরস ভাব কাটিয়ে মহাসমারহে পালন করুন কিস ডে। আপনার আলতো চুমুর ছোঁয়ায় প্রিয়জনের মুখের নরম হাসিই বুঝিয়ে দেবে তাঁর জীবনে আপনি কতটা গুরুত্বপূর্ণ।

যে কোনও আবেগকে পরিষ্ফুট ভাবে প্রকাশ করতে যিনি বাঙালির শেষ আশ্রয় সেই রবীন্দ্রনাথ চুম্বন কবিতায় অনেক আগেই বলেছেন—

‘দুটি তরঙ্গ উঠি প্রেমের নিয়মে

ভাঙিয়া মিলিয়া যায় দুইটি অধরে।।

ব্যাকুল বাসনা দুটি চাহে পরস্পরে-

দেহের সীমায় আসি দুজনের দেখা।।

প্রেম লিখিতেছে গান কোমল আদরে-

অধরেতে থরে থরে চুম্বনের লেখা।।’

চুপিচুপি বিয়ে করলেন প্রীতি?

হ্যালোটুডে ডটকম: চুপিচুপি বিয়েটা তা হলে করেই ফেললেন বি-টাউনের ‘প্রীটি’ উওম্যান?

ক’দিন ধরেই ১০, ৯, ৮…এ ভাবেই প্রীতি জিন্টার বিয়ের কাউন্টডাউন করছিল বলি-দুনিয়া। কিন্তু সবটাই জল্পনার ভিত্তিতে। বিয়ে তো করছেন নায়িকা। কিন্তু সঠিক ডেটটা কেউই বলতে পারছিলেন না। তবে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকেই সোশাল মিডিয়ায় ঘুরছে এই খবর। যেখানে অনেকেই বলছেন, আজই নাকি লস এঞ্জেলসে বয়ফ্রেন্ড জেনে গুডএনাফের সঙ্গে বিয়েটা সেরে ফেলেছেন নায়িকা!

দু’দিন আগেই সুজান খান, সুরিলি গোয়েলের মতো প্রীতির বলি ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুরা লস এঞ্জেলসে বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পৌঁছেছিলেন। সোশাল মিডিয়ায় সে ছবি শেয়ারও করেছেন সুজান। কিন্তু বিয়ের ডেট কবে তা খোলসা করেননি।

জেনে গুডএনাফের সঙ্গে গত ১৮ মাস ধরে নাকি ডেট করছেন প্রীতি। যদিও তাঁর বিয়ে নিয়ে মিডিয়ার বাড়াবাড়িতে বেজায় চটেছেন নায়িকা। সম্প্রতি নিজের টুইটারে তিনি লেখেন, ‘‘আমার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে নানা গুঞ্জনে আমি খুবই বিরক্ত। কোনও বিষয়কে কী ভাবে নষ্ট করতে হয় মিডিয়া তা খুব ভাল ভাবেই জানে। এটা বন্ধ হওয়া দরকার।’’

কিন্তু মিডিয়া হয়তো এর পরও থেমে থাকবে না। যতই হোক প্রীতি জিন্টার বিয়ে বলে কথা! তাঁর বিয়ের এক্সক্লুসিভ ফুটেজ না পাওয়া পর্যন্ত কি নিশ্চিন্ত হওয়া যায়!

মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার আরেকটি গোল উৎসব

হ্যালোটুডে ডটকম: ভাগ্যের ফেরে আর নেইমার, সুয়ারেসের ব্যর্থতায় সুযোগ নষ্ট হলো অনেক। তারপরও ভায়েকানোর জালে ঠিকই গোল উৎসব করেছে বার্সোলোনা। লিওনেল মেসির হ্যাটট্রিকে লা লিগার এ ম্যাচে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানে জিতেছে লুইস এনরিকের দল।

এ জয়ে আতলেতিকো মাদ্রিদের চেয়ে ফের আট পয়েন্টে এগিয়ে গেল বার্সেলোনা। ২৭ ম্যাচে শীর্ষে থাকা দলটির পয়েন্ট ৬৯। দ্বিতীয় স্থানে থাকা দিয়েগো সিমেওনের দলের পয়েন্ট ৬১।

এর আগের ছয়বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে ভায়েকানোর জালে ২৯ বার বল পাঠিয়েছিল বার্সেলোনা। এ দিনও তার ব্যতিক্রম হলো না।

‘প্রিয় প্রতিপক্ষের’ মাঠে বৃহস্পতিবার রাতে শুরুতে অবশ্য কিছুটা অনুজ্জ্বলই ছিল বার্সেলোনার দুর্দান্ত আক্রমণভাগ। তবে স্বরুপে ফিরতেও দেরি করেনি তারা। আর ২১তম মিনিটে প্রথম সুযোগেই দলকে এগিয়ে দেন ইভান রাকিতিচ।

গোলটিতে অবশ্য অতিথিদের কৃতিত্বের চেয়ে স্বাগতিক গোলরক্ষকের ভুলের দায়ই বেশি। দূর থেকে বার্সেলোনার স্পেনের মিডফিল্ডার সের্হিও রবের্তোর দেওয়া ক্রস সহজেই ধরতে পারা উচিত ছিল গোলরক্ষক হুয়ান কার্লোসের, কিন্তু পারলেন না তিনি। ছয় গজ দূর থেকে বিনা বাধায় সুযোগটা কাজে লাগাতে কোনো ভুল করেননি রাকিতিচ।

এক মিনিট বাদেই মেসি-নেইমারের দারুণ বোঝাপড়ায় ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা। সামনে থাকা ব্রাজিলিয়ান সতীর্থকে বল বাড়িয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। পরক্ষণে নেইমার সঙ্গে লেগে থাকা এক ডিফেন্ডারের বাধা এড়িয়ে ব্যাকপাস করেন, যা ধরে অনায়াসে লক্ষ্যভেদ করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা তারকা।

দুই মিনিটের মধ্যে দুই গোলে পিছিয়ে পড়া মাদ্রিদের ছোট দলটি ৪২তম মিনিটে আরেকটি বড় ধাক্কা খায়; ইভান রাকিতিচেক ফাউল করায় সরাসরি লাল কার্ড দেখেন তাদের স্প্যানিশ ডিফেন্ডার হাভিয়ের লরেন্তে।

এবারের লা লিগায় এটি দিয়ে সর্বোচ্চ আটটি লাল কার্ড দেখল ভায়েকানোর খেলোয়াড়েরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ব্যবধান আরও বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিলেন নেইমার, কিন্তু শট একটুর জন্যে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

এর ছয় মিনিট বাদেই অবশ্য স্কোরলাইন ৩-০ করেন মেসি। সুয়ারেসের জোরালো শট পোস্টে লেগে ফিরলে বল পেয়ে যান আর্জেন্টিনার অধিনায়ক। সহজেই গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন দলের সেরা তারকা।

৫৭তম মিনিটে একটি গোল শোধ করে কিছুটা লড়াইয়ের আভাস দিয়েছিল স্বাগতিকরা। খুব কাছ থেকে হেডে বল জালে জড়ান অ্যাঙ্গোলার ফরোয়ার্ড মানুচো।

লড়াইয়ের সম্ভাবনা জাগালেও অবশ্য এক জন কম নিয়ে পেরে ওঠেনি ভায়েকানো। ৬৩-৬৮তম মিনিটের মধ্যে নেইমার-সুয়ারেসরা কয়েকটি সুযোগ না হারালে এই সময়ে ব্যবধান বাড়তে পারতো।

এর মধ্যে ৬৬তম মিনিটে নেইমারের ফ্রি-কিক ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। ফিরতি বল ফাঁকায় দাঁড়ানো সের্হিও বুসকেতস অনায়াসে জালে জড়াতে পারতেন, কিন্তু শট নেওয়ার আগ মুহূর্তে তাকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন চিলির মিডফিল্ডার মানুয়েল ইতুরা। পেনাল্টি পায় বার্সেলোনা, মেসির হ্যাটট্রিকের সুযোগ থাকলেও সুয়ারেসকে স্পটকিক নিতে দেন। কিন্তু উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের ব্যর্থতায় ব্যবধানে বাড়েনি।

তিন মিনিট বাদেই অবশ্য হ্যাটট্রিক পূরণ করেন মেসি; নয় জনের দল ভায়েকানোর রক্ষণের দুর্বলতা এখানে স্পষ্ট হয়ে ওঠে। মাঝ মাঠের কিছুটা ভিতর থেকে বল পায়ে দৌড়ে বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন এবারের ফিফা ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা।

লা লিগার এ মৌসুমে মেসির এটা ১৯তম গোল।

আর ৮৬তম মিনিটে স্কোরশিটে নাম লেখান আর্দা তুরান। ফরাসি ডিফেন্ডার জেরেমি মাথিউয়ের ক্রসে হেড করে বল জালে জড়ান তুরস্কের এই মিডফিল্ডার।

এই জয়ে সব ধরণের প্রতিযোগিতা মিলে অপরাজিত থাকার রেকর্ড ৩৫তম ম্যাচে উন্নীত করলো বার্সেলোনা।

মদ্যপ মেডিকেল ছাত্রীর অভব্যতা (দেখুন ২৪ লক্ষবার দেখা ভিডিও)

হ্যালোটুডে ডটকম : মদ্যপ অবস্থায় ও উঠেছিল ট্যাক্সিতে। ট্যাক্সি থেকে নামতেই সেই মদ্যপ তরুণী শুরু করেন অভব্যতা। চালককে চড় মারা, গাড়িটি ভাঙচুর করে, গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টাও করেন। হতচকিত হয়ে পুলিসকে ফোন করেন সেই চালক। পুলিস আসার আগেই অবশ্য সেই তরুণী ভাড়া না মিটিয়ে পালিয়ে যায়।
এমনই এক ভিডিও প্রকাশের পর ভাইরাল হয়ে যায়। ঘটনাটি ঘটে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামিতে। সেই তরুণীর নাম অঞ্জলি রামকিসুন। সেই তরুণী মেডিক্যালের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী। অঞ্জলি কলেজ থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।
১৯ জানুয়ারি আপলোড করার পর এই ভিডিওটি ২৪ লক্ষ বার দেখা হয়ে গিয়েছে। দেখুন এই ভাইরাল ভিডিওটি

ফিলিপাইন থেকে কি ৮০০ কোটি টাকা উদ্ধার করা যাবে?

টাকা চুরির ঘটনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের শীর্ষ স্তরে বড় ধরনের রদবদলের পরদিন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ তাদের তদন্ত শুরু করেছে।
তবে যুক্তরাষ্ট্রে রাখা অ্যাকাউন্ট থেকে ফিলিপাইনে যাওয়া প্রায় ৮০০ কোটি টাকা আদৌ উদ্ধার করা যাবে কি না তা বাংলাদেশের কর্মকর্তারা এখনো পরিষ্কার করে কিছু বলতে পারছেন না।

জানা গেছে, এই অর্থ চুরি এবং উদ্ধার নিয়ে ফিলিপাইনের সংসদে এক শুনানিতে স্থানীয় বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তারা পর্যবেক্ষক হিসেবে অংশ নিচ্ছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চুরি যাওয়া অর্থের বড় একটি অংশ ফিলিপাইনে জুয়া খেলার ক্যাসিনোতে চলে গেছে বলে ওই শুনানি থেকে ধারণা পাওয়া গেছে।
ঘটনার এক মাসেরও বেশি সময় পর এখন ঢাকায় যে মামলা করা হয়েছে, তাতে অর্থ চুরি, পাচার এবং সাইবার অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এ মামলাতেই পুলিশের তদন্ত বিভাগ সিআইডি বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকে তাদের তদন্ত কাজ শুরু করে।  সিআইডি পুলিশের কর্মকর্তা মির্জা আব্দুল্লাহ হেল বাকি বলেছেন, টাকাটা কীভাবে চুরি হলো, সে বিষয়েই তাদের তদন্তে জোর দেয়া হচ্ছে।  এখন তদন্তের শুরুতে তারা মূলত তথ্য সংগ্রহ করছেন।

তদন্তের পাশাপাশি চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারের চেষ্টার কথাও বলছেন সরকারি কর্মকর্তারা।  নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরির এ ঘটনায় শ্রীলংকা থেকে দুই কোটি টাকা উদ্ধার করা গেছে।  ফিলিপাইনে চলে যাওয়া সেই অর্থ উদ্ধারের ব্যাপারে এখনো নিশ্চয়তা পাওয়া যাচ্ছে না।

এ নিয়ে ফিলিপাইনের সিনেটে শুনানিতে পর্যবেক্ষক হিসেবে অংশ নেয়ার পর সেখানকার বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল জন গোমেজ বলেছেন, চুরি যাওয়া অর্থের বড় অংশ ফিলিপাইনে জুয়া খেলার ক্যাসিনোতে যে চলে গেছে তা উদ্ধারের জন্য দেশটিতে আইনে কি আছে, সেটা খতিয়ে দেখে তারা তা বাংলাদেশকে জানাবে।

তিনি বলেন, টাকাটা ফিলিপাইনে কিছু অ্যাকাউন্টে যে জমা হয়েছিল, সেটা তাদের সিনেটের শুনানিতে প্রমাণিত হয়েছে।  ফিলিপাইনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকসহ তাদের বিভিন্ন পর্যায়ে যে তদন্ত হয়েছে, সেসব প্রতিবেদন দেশটির পত্রিকায় প্রকাশ হয়েছে।  সিনেটের শুনানিতেও তা এসেছে।

জন গোমেজ বলেন, বিষয়টা তদন্তের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের তদন্ত সংস্থা এফবিআইয়ের একটি দলও ফিলিপাইনে গেছে।  অর্থ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনে আটক সন্দেহভাজনদের সিনেটের শুনানিতে হাজির করা হয়।

সেখানকার যে ব্যাংকের বিরুদ্ধে মুল অভিযোগ এসেছে, সেই ব্যাংকের ম্যানেজার জাপানে পালানোর চেষ্টার সময় বিমান থেকে তাকে নামিয়ে এনে আটক করা হয়েছে।  এমন তথ্য ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশকে জানিয়েছে।

তবে ঘটনার ব্যাপারে মামলা বা আইনগত ব্যবস্থা কি নেয়া হচ্ছে, সে ব্যাপারে বাংলাদেশ জানতে চেয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

জেনারেল জন গোমেজ বলেছেন, বাংলাদেশের অর্থ চুরির এ ঘটনার প্রেক্ষাপটে ১৪টি দেশ ফিলিপাইনের ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে।  দেশটি তাদের ব্যাংকিং খাত নিয়ে ভাব মূর্তির সংকটে পড়েছে।

ফলে ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষ চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধার এবং জড়িতদের চিহ্নিত করার বিষয়ে গুরুত্ব দিচ্ছে বলে তিনি মনে করেন।  ফিলিপাইনের সিনেটে মঙ্গলবার আবার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। -বিবিসি

তথ্য-প্রযুক্তিতে এগিয়ে, তাই হ্যাকারদের টার্গেট এখন বাংলাদেশ : জয়

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, তথ্য-প্রযুক্তিতে এগিয়ে বাংলাদেশ, তাই হ্যাকারদের অন্যতম টার্গেট বাংলাদেশ।
জার্মানির হ্যানোভার সিটিতে আয়োজিত সিবিট মেলায় প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ হিসেবে দেয়া বক্তব্যে গতকাল মঙ্গলবার সজীব ওয়াজেদ জয় এ কথা বলেন

জয় বলেন, হ্যাকারদের অন্যতম টার্গেট এখন বাংলাদেশ।  এর কারণ ডিজিটালাইজেশন।  সরকার এ বিষয়গুলোকে মাথায় রেখেই ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার স্বল্প সময়ে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দিয়েছে।  যার সুফল গ্রামের মানুষ ঘরে বসে ভোগ করছে।  হাইটেক পার্ক নির্মাণের মাধ্যমে প্রযুক্তি দক্ষ প্রজন্ম তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। যারা ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন পূরণে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে।

ইউরোপীয় বিনিয়োগকারীদের আহ্বান জানিয়ে জয় বলেন, গত সাত বছরে দেশে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বিপ্লব ঘটেছে। বিনিয়োগ অব্যাহত থাকলে এ খাতকে ঈর্ষণীয় জায়গায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব।  উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে সরকার সহজ শর্তে ঋণসহ নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে।

এরই মধ্যে সরকার বিনামূল্যে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তৃনমূল পর্যায়ে ৩০ হাজারের মত নারী উদ্যোক্তা তৈরি করেছে বলে জানান তিনি।  এ প্রক্রিয়া অব্যাহতভাবে চলছে।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, এরই রমধ্যে সরকার মেট্রোরেল, গভীর সমুদ্রবন্দর, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, ডিজিটাল আইল্যান্ড, টায়ার ফোর দাতা সেন্টার এবং ইন্টারনেট ফোর জি’র সকল প্রস্তুতি শেষ করে প্রকল্পগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল অর্থনীতির সংক্ষিপ্ত রূপ ‘ডিকোনমি’ শব্দটিকে মূল বিষয় ধরে জার্মানির হ্যানোভার শহরে শুরু হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় তথ্য-প্রযুক্তি মেলা সিবিট-২০১৬।  পাঁচদিনব্যাপী এ মেলা শুরু হয়েছে ১৪ মার্চ।  শেষ হবে ১৮ মার্চ।

দেখুন মাত্র চার হাজার টাকায় পাওয়া যাচ্ছে সুন্দরী বউ। পডুন ও শেয়ার করুন।

নিউজের টাইটেল দেখে অনেকেই হয়তো অনুধাবন করতে পেরেছেন আবার অনেকেই কিছুই বুঝতে পারেননি,কিছুটা অবাক হচ্ছেন বৈকি,হ্যাঁ অবাক হবারই কথা,কারণ সুন্দরী বউ পাওয়া যাচ্ছে মাত্র চার থেকে আট হাজার টাকার ভিতরে,আবার সাথে আছে ওয়ারেন্টি এবং গ্যারান্টি। পুরোপুরি জানতে হলে নিচের লেখাগুলো মনোযোগ সহকারে পড়ুন,আপনার ধারণা বদলে যাবে।
প্রযুক্তির কারণে বদলে যাচ্ছে মানুষের জীবনযাত্রা – এমন কি তাদের একান্তই ব্যক্তিগত জীবন। ধীরে ধীরে আধুনিক শহুরে মানুষের জীবনে প্রবেশ করে গেছে সেক্স ডল। এবং বদলে যাচ্ছে সম্পর্কের ধরন। তবে ভাবনার বিষয়টি হলো, এই সেক্স পুতুলগুলো ধীরে ধীরে এতটাই জীবন্ত হয়ে উঠছে যে, মানুষ সেগুলোর প্রতি যথেষ্ঠ পরিমাণে আকৃষ্ট হয়ে উঠছে, বিশেষ করে উন্নত বিশ্বের মানুষের কাছে। উপরের ছবিটি দেখলেই কেউ বুঝতে পারবেন, এটা কতটা জীবন্ত একটি সেক্স পুতুল। অনেকেই প্রথমে ভাবতে পারেন, হয়তো কোনও সুপার মডেল।

কিন্তু এত সুন্দর করে তৈরী করা সেক্স পুতুলগুলো এখন মানুষের ঘরে প্রবেশ করে যাচ্ছে। সেক্স পুতুলগুলো প্রধানত তৈরী করা হতো একধরনের ভিনাইল বা ল্যাটেক্স দিয়ে। কিন্তু বর্তমান সময়ের যে উন্নত ধরনের সেক্স পুতুল বাজারে আসতে শুরু করেছে তার মূল উদ্যোক্তা হলেন শিল্পী ম্যাট ম্যাকমুলান। তিনি একজন ভাস্কর। তিনি গবেষণা শুরু করে সিলিকন দিয়ে এই ধরনের লাইফ সাইজ পুতুল বানাতে শুরু করেন। তারপর তিনি তার ওয়েসাইটে প্রকাশ করেন। তারপর এর চাহিদা এতো বেড়ে যায় যে, তিনি পুতুলগুলোকে মানুষের এনাটমীর মতো সঠিকভাবে তৈরী করতে শুরু করেন।

সময়ের সাথে চাহিদা আরো বেড়ে যায়। এবং সাথে সাথে এর নৈপূণ্য আরো কারুকার্যময় হয়ে উঠে। বর্তমানে একজন গ্রাহক তার নিজের চাহিদার মতো অর্ডার দিতে পারেন, যেখানে গায়ের রঙ, চুলের রঙ, স্টাইল ইত্যাদি বলে দেয়া যায়। এবারে মুল আলোচনায় আসা যাক সম্প্রতি অনলাইন শপ জাস্ট টুয়েন্টি ফোর ডট কম একটি ঘোষনায় সমগ্র দেশবাসীর নজর কেড়েছেন,
সম্প্রতি এরা গ্রাহকদের জন্য চীন থেকে অর্ডার দিয়ে এনেছেন সেক্স ডল যার মূল্য নির্ধারণ করেছেন চার হাজার থেকে শুরু করে বারো হাজার টাকা পর্যন্ত,অনলাইন বিজ্ঞাপনের শিরোনাম করেছেন ঠিক এভাবে মাত্র চার হাজার টাকায় পাচ্ছেন সুন্দরী বউ,সাথে আছে গ্যারান্টি এবার ওয়ারেন্টি,ভাববেন না আছে মেয়েদের জন্যও সুব্যবস্থা,এই লোভনীয় বিজ্ঞাপন নজর কেড়েছে সকলেরই,
বিগত আটচল্লিশ ঘন্টার ভিতরে অর্ডার এসেছে প্রায় চার হাজারেরও উপরে,কিন্তু দুঃখের বিষয় বাদ সাধে স্থানীয় প্রশাসন,তামিলনাড়ুর পুলিশ প্রশাসন ইতিমধ্যে অবৈধ জিনিস বিক্রির দায়ে গ্রেফতার করেছেদ কোম্পানির স্বত্বাধিকারী দিব্য চক্রবর্তী কে। দিব্য চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে মামলা করাও হয়েছে, পুলিশ উপ প্রধান শিশির রায় জানান,কোম্পানির সুনাম রয়েছে দীর্ঘ দিন ধরে তবে তাদের কাছে তথ্য ছিলো দিব্য চক্রবর্তী এই ব্যবসা করছেন বহুদিন ধরে তবে উপযুক্ত তথ্যের অভাবে এতদিন তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি,
এই পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান শুধুমাত্র তামিলানুড় নয় দেশের বিভিন্ন প্রদেশে তিনি এই ডল সরবরাহ করে থাকেন, কলকাতার একটি অনলাইন শপের সুত্র ধরে দিব্যকে নিয়ে প্রথমেই সন্দেহের দানা বাধে। সুত্রঃ তামিলানুড় থেকে প্রকাশিত হিন্দি নিউজ দিনামালার

যে কাজগুলো করলে যে কোন মেয়ে আপনাকে কোন দিন ভুলতে পারবে না! অসাধারন পোস্ট দেখুন।।

যে গোপন কাজগুলো করলে যে কোন মেয়ে আপনাকে কোনদিন ভুলতে পারবে না! অসাধারন পোস্ট দেখুন।

জন্ম নেওয়া একটি মেয়ে শিশু তার পরিবার ও বাবা-মার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যখন সে আস্তে আস্তে বড় হয় তখন বাবা-মা তাকে দায়িত্বশীল নারী হয়ে গড়ে উঠতে সাহায্য করেন। পরিবারে কখনো সে দায়িত্বশীল মেয়ে, কখনো নারী, কখনো প্রেমিকা, স্ত্রী, কখনোবা মা। এই পরিবর্ততের সময় একজন নারীর জীবনে অনেক কিছুই ঘটে। তবে জীবনের সাতটি মুহূর্ত সে কখনই ভুলে না। তেমনই সাতটি মুহূর্ত হলো— ভালোবাসার মুহূর্তে একটি মেয়ে সবসময়ই চায় তার ভালোবাসার মানুষটি বাবার অনুরূপ হোক। যখন মেয়েটি দেখে ছেলেটির সব কিছু তার বাবার মতো তখন সে তার প্রেমে পড়ে যায়।

আর ওই মুহূর্তই একটা মেয়ের জীবনে স্মরণীয়। তার সমস্ত স্বপ্নজুড়ে থাকে ‘রাজকুমারটি’। যেদিন প্রথম প্রস্তাব পায় একটি মেয়ে স্বাভাবিকভাবে যখন নারী হয়ে উঠে তখন তার স্বপ্ন দেখা শুরু হয় এক রাজকুমারকে ঘিরে। আর সেই রাজকুমারই যখন তাকে প্রথম ভালোবাসার কথা বলে সেই মুহূর্তটিই তার জীবনে স্মরণীয়। এটা তার জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়। কর্মজীবনে অগ্রগতির মুহূর্তে বাবা-মা মেয়েকে পড়াশোনা করিয়ে বড় করে তার সাফল্য দেখার আশায়। মেয়ের স্বাধীনতা ও আত্মনির্ভরশীলতা দেখে বাবা-মা খুশি হন।

তাদের লক্ষ্য অর্জন করতে পেরে মেয়েও অনেক আনন্দিত হয়। বিয়ের মুহূর্তটি চারদিকে বিয়ের সানাই বাজছে। হৃদয়ের একটা অংশকে অন্যের হাতে তুলে দিয়ে চোখের পানি ফেলছেন বাবা-মা। কিন্তু একটি মেয়ে সবসময়ই সুখী ও নিরাপদ জীবন চায় তার স্বামীর কাছে।

একটি মেয়ে নতুন পরিবার ও নতুন পরিবেশে প্রবেশ করতে যাচ্ছে সেটি তার জীবনে সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ সময়। প্রথম মা হওয়ার মুহূর্তটি গর্ভধারণ করা দশ মাস একটি মেয়ের জীবনে স্মরণীয় মাস। শিশুর জন্মের পর সে দ্বিতীয় জীবন পায়। এটাই তার জীবনে অবিস্মরণীয় একটি দিন।

তখন থেকেই তার চিন্তা শুরু হয় কিভাবে তার সন্তানকে সকল প্রতিকূলতা থেকে দূরে রাখবে। প্রথম মা ডাক প্রথম মা ডাক একজন নারীর জীবনে সবচেয়ে স্মরণীয় একটি দিন। একজন নারী এই দিনটির জন্যই অপেক্ষায় থাকেন। তার কোলজুড়ে সন্তা

অস্ট্রেলিয়া- ভারতের বিপক্ষে টাইগাদের নতুন বোলিং পরিকল্পনা

গত বুধবার কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে পাকিস্তানের বিপক্ষে তাদের এলোমেলো বোলিংয়ে ২০২ রানের বিশাল লক্ষ্য পায় বাংলাদেশ।কিন্তু বেঙ্গালুরুতে এমন ভুল আর করতে চান না বাংলাদেশের বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিক।

বেঙ্গালুরুতে ইডেনের চেয়েও বেশি রান হতে পারে। এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে দুইশ’ রানও তাড়া করা সম্ভব বলে মনে করছে বাংলাদেশ দল। তবে লক্ষ্যটা যতটা সম্ভব ছোট পেতে চান স্ট্রিক।

বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ, যাদের মূল শক্তি ব্যাটিং। জিম্বাবুয়ের সাবেক অলরাউন্ডার স্ট্রিক জানান, এই দুই দলের প্রত্যেক ব্যাটসম্যানের জন্য বোলারদের আলাদা পরিকল্পনা থাকবে।

“এই মাঠে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সম্ভবত সুনির্দিষ্ট ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে পরিকল্পনা। নিশ্চিত করতে হবে যেন পরিকল্পনা মতো আমরা বোলিং করি। এজন্যই আমরা ওদের নিয়ে বিশ্লেষণ করব।”

উল্লেখ্য, আগামী সোমবার অস্ট্রেলিয়া ও বুধবার ভারতের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ।

এই না হলে সুপার গার্ল?

টয়া এখন সুপারগার্ল। তানিম রহমান অংশুর নতুন ধারাবাহিক ‘সুপার গার্লস’ এর একজন তিনিও। এখানে তাকে দেখা যাবে একজন অভিনেত্রীর চরিত্রে। মধ্যবিত্ত আদর্শের একজন, থাকেন অন্য দুই সুপার গার্লস এর সঙ্গে। গল্পের বাকিরা কেউ উপস্থাপক, কেউ বাস্কেটবল প্লেয়ার, কেউবা সঙ্গীতশিল্পী। সবাই স্ব স্ব ক্ষেত্রে আত্মশক্তিতে পূর্ন। এ জন্যই তারা সুপারগার্ল। বলছিলেন টয়া।

সম্প্রতি দু’দিন শুটিং হয়েছে ধারাবাহিকটির। আবার শুরু হচ্ছে শিগগিরই। টয়াই সংবাদ সূত্র। তিনি জানালেন, খুব চমৎকার একটি কাজ হতে যাচ্ছে। স্ক্রিপ্ট টা এমনভাবে সাজানো হয়েছে যে, প্রতি পর্বেই নতুন নতুন গল্পের মজা পাবেন দর্শক। যদিও পরের পর্বে এর রেষ থাকবে তবু এমন না যে অতৃপ্তি নিয়ে পর্বগুলো

সাম্প্রতিকবছরগুলোতে নাটকের পর্দায় তারুণ্যের জয়জয়কার। টয়াও সে তারুণ্যের প্রতিনিধি। বললেন, গত এক দু’বছর তরুনদের নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী হচ্ছেন নির্মাতারা। তাই আমাদের প্রায়ই একসঙ্গে দেখা যাচ্ছে। এই সুপারগার্লসদের মধ্যে সাফার সঙ্গে আমার বেশ ভালো বন্ধুত্বও হয়ে গেছে কাজ করতে করতে। নাদিয়াকেও জানি লাক্সের কল্যানে। বাকিদের সঙ্গেও কাজ করতে করতে একটা সুপার বন্ডিং তৈরী হবে এমনটাই মনে করছি।’

কিন্তু জেনে রাখা ভালো, উচ্চতায় বলুন আর কাজের ক্ষেত্রেই বলুন, টয়া এখানে একটু সিনিয়র। তাই অন্য প্রসঙ্গেও যাওয়া। বিজ্ঞাপনে অনন্ত জলিলের সঙ্গে সব সম্ভব করেতো বিখ্যাত তিনি। নাটকেও নিয়মিত। কিন্তু সিনেমায় নেই। কেন?

টয়া খুব স্থীর, ধীরভঙ্গিতে কথা বলেন, সিদ্ধান্তেও দেখা গেলো তাই, ‘কমার্শিয়াল মুভিতে কাজ করবো না। প্রচুর অফার আসে কিন্তু আমি রাজি হচ্ছি না। যে ধরণের সিনেমায় কাজ করতে চাই তার জন্য নিজেকে আরো প্রস্তুত করতে হবে। ভালো ডিরেক্টরদের চোখে পড়তে হলে অন্তত অ্যাক্টিংটাতো ভালো করতে হবে।’
অভিনয়ের প্রতি, নিজের রুচির প্রতি দায়বদ্ধতার দৃষ্টান্ত স্বয়ং! এই না হলে সুপার গার্ল?

সেই নারীর বর্ণনায় বাংলাদেশের অর্থ চুরির ঘটনা (ভিডিওসহ)

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের অর্থের অবৈধ লেনদেনের ঘটনাটি ফিলিপাইনের ব্যাংক রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের (আরসিবিসি) প্রেসিডেন্ট ও সিইও লরেঞ্জো তান জানতেন। এর সঙ্গে তাঁর এক ‘বন্ধু’ জড়িত।

ব্যাংকটির সংশ্লিষ্ট শাখার ব্যবস্থাপক সান্তোস দেগুইতো এ দাবি করেছেন। সংবাদমাধ্যম এবিএস-সিবিএন নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ দাবি করেন। এই নারী আরো বলেন, তানের ওই বন্ধুর নাম কিম ওং। যে ছয়টি ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে চুরির লাখ লাখ ডলার তোলা হয়েছে, তার একটি ওই কিমের।

দেগুইতো বলেন, ২০১৫ সালের মে মাসে কিম ওং তাঁর কাছে চারজনকে পাঠান। তাঁদের নাম মাইকেল ফ্রান্সিসকো ক্রুজ, জেসি ক্রিস্টোফার লারগ্রোসাস, আলফ্রেড সান্তোস ভারগারা ও এনরিকো তিওদোরো ভাসকুয়েজ। এই চারজনই কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে অন্য অ্যাকাউন্ডগুলো খোলেন।

দেগুইতো বলেন, ‘আমি পাঁচ ব্যক্তির সঙ্গে সোলেয়ার হোটেলে দেখা করেছি। যেমনটা আমি আগেও রেডিওতে সাক্ষাৎকারে বলেছি, ব্যবস্থাপক হিসেবে আমি মার্কেটিংয়ের জন্য শাখার বাইরে যেতেই পারি।’ তিনি বলেন, ‘সোলেয়ারে পাঠানো ওই পাঁচ ব্যক্তির কথা আমাকে বলা হয়েছিল। ওই পাঁচজন সেখানে সব কাগজপত্র দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলার ফরম পূরণ করেছিল।’

কেন তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে হোটেলে গেলেন-এমন প্রশ্নের জবাবে দেগুইতো বলেন, ‘কিম ওং ব্যাংক প্রেসিডেন্টের ঘনিষ্ঠ বন্ধু। এমন ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে বিশেষ ব্যবস্থা পেতে পারেন।’

ব্যবসায়ীর ডলার অ্যাকাউন্ট

কিম ওং এবং অন্যদের খোলা ব্যাংক অ্যাকাউন্টগুলো ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ তারিখে আট কোটি ১০ লাখ ডলার আসার আগ পর্যন্ত অব্যবহৃত ছিল। এরপর তা স্থানীয় ব্যবসায়ী উইলিয়াম গোর ডলার অ্যাকাউন্টে পেসো করে দেওয়া হয়।

দেগুইতো বলেন, কিম ওংয়ের আদেশে ৫ ফেব্রুয়ারি উইলিয়াম গোর ডলার অ্যাকাউন্টটি খোলা হয়। ওই দিনই তাঁদের ব্যাংকে আট কোটি ১০ লাখ ডলার ঢোকে।

তবে ব্যবসায়ী গো অ্যাকাউন্ট খোলার ব্যাপারে কিমের নির্দেশটি জানতেন কি না, দেগুইতো তা যাচাই করেননি।

উচ্চপর্যায় থেকে নির্দেশ গিয়েছিল?

দেগুইতো আরো বলেন, অবৈধ অর্থ তাঁর জুপিটার শাখায় পৌঁছার আগে আদেশ পাস করে আরসিবিসির প্রধান কার্যালয়।

দেগুইতো দাবি করেন, তিনি হঠাৎ করেই এত বিশাল পরিমাণ অর্থ আসার বিষয়টি প্রধান কার্যালয়ের নজরেও আনেন। কিন্তু তারা কোনো লাল নোটিশ দেয়নি।

‘এমনকি আরসিবিসির ট্রেজারি শাখা ডলারগুলো পেসোতে পরিবর্তন করেও দেয়,’ বলেন দেগুইতো। তাঁর দাবি, প্রেসিডেন্ট তান লেনদেনের বিষয়টি জানতেন।

তবে লরেঞ্জো তান লেগুইতোর সব অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন।

জেনে নিন কোন রাশির মেয়েরা শারীরিক সম্পর্কে বেশি পাগল! প্রেম ছাড়াও করে ফেলবে নিশ্চিত অবৈধ সম্পর্ক!বাস্তব সত্য পোস্ট দেখুন।

যৌনতায় কোন রাশি বেশি পারদর্শী

 যৌনতা, রোমান্স সবার জীবনেই একটি আকাংখিত ব্যাপার। কিন্তু, সবাই এ বিষয়ে সমান পারদর্শী হয়না। তাহলে কোন বিষয়টি এই তারতম্যের কারণ? আসুন এর উত্তর খোজার চেষ্টা করি মানুষের রাশি অনুযায়ী।

মেষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)
মঙ্গল হল যৌনতা, যুদ্ধ এবং শক্তির দেবতা আর এ সবকিছুই ফুটে ওঠে মেষ রাশির জাতক-জাতিকার জীবনে। দৈহিক প্রেমের ক্ষেত্রে শক্তি প্রয়োগে পারঙ্গম এই মানুষেরা দুর্দান্ত প্রেমিক হিসেবে পরিচিত। কিন্তু বেস্ট পারফরম্যান্সের জন্য আপনাকে ব্যাটবল চালাতে হবে সমানতালে। আর খেলার মাঠের কাটাছেঁড়া, রক্ত বা অন্য কোনো লাভ বাইট দেহজ প্রেমকে যেন করে তোলে আরো আকর্ষণীয়।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২১ মে)
ভালোবাসাই সব… পারদর্শী ভেনাসের প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে এই রাশির জাতক জাতিকার ওপর। এরা দৈহিক ভালোবাসার ক্ষেত্রে একই সঙ্গে খুব সংবেদনশীল এবং শক্তিমত্তা প্রয়োগে পারঙ্গম। যৌনতার স্ট্যামিনা বা শক্তির দিক থেকে এদের জুড়ি মেলা ভার। ক্লান্তিবিহীন, সদাপ্রস্তত এবং ছন্দময় দৈহিক সম্পর্কের গ্যারান্টি দিয়ে থাকে এই রাশির মানুষেরা।

 

মিথুন (২২ মে-২১ জুন)
বুধ গ্রহের প্রভাবে সদাসর্তক মনোভাব, মিষ্টভাষী, আদুরে আর খুনসুটিপূর্ণ ব্যক্তিত্ব নিয়ে এই রাশির জাতক-জাতিকা রয়েছে মহাসুখে। শুদ্ধ ‘কথা’ দিয়েই অপর মানুষদের বশ করতে এদর জুড়ি নেই। যৌনতার বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্টাল দিক এই রাশির মানুষদের টানে। আপনার মিথুন প্রেমিক/প্রেমিকাকে আপনি শয্যায় পেতে পারেন ঠিক যেভাবে আপনি চান।

কর্কট (২২ জুন-২২ জুলাই)
দৈহিক প্রেমের ক্ষেত্রে কর্কট রাশির জাতক জাতিকার সাহচর্য রোলার কোস্টার রাইডের মতো। এই চরম আনন্দের শিখরে তো এই শান্তশিষ্ট, ভাজা মাছটি উল্টে খেতে না জানার মতো হাবভাব। তাই এদের সঙ্গে কোনো কিছু করার সময় সারপ্রাইজড হওয়ার প্রস্তুতি থাকতে হবে পুরোদস্তুর।

সিংহ (২৩ জুলাই-২৩ আগস্ট)
প্রেমিক-প্রেমিকা হিসেবে বিখ্যাত সিংহ দৈহিক সম্পর্কের ক্ষেত্রেও নিজরে সুনামের সঙ্গে অবিচার করেনি। যে কোনো প্রগাঢ় সম্পর্কের ক্ষেত্রেই এদের ইতিবাচক মনোভাব, হাস্যরস আর শরীরিক দক্ষতা তুলনাহীন। সিংহ রাশির কাউকে ভালবাসার মানুষ হিসেবে পাওয়া সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার।

কন্যা (২৪ আগস্ট-২৩ সেপ্টেম্বর)
নিখাদ ভালবাসা আর দুর্দান্ত সেক্সের অসাধারণ প্যাকেজ আপনাকে উপহার দিতে পারেন কন্যা, পুরুষ বা মহিলা। কান, ঠোঁট বা স্তনের সংবেদনশীলতা এ রাশির মানুষের অতিমাত্রায় বেশি আর দেহজ ভালবাসার ক্ষেত্রে কোমলতা ও রক্ষতার অদ্ভুত এক সমন্বয় এদের পছন্দ।

তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর-২৩ অক্টোবর)
দিনে বন্ধু আর রাত্রিতে প্রেমিক এই প্রবাদের সবচেয়ে বড় উদারহণ হলো তুলা রাশির ছেলে-মেয়েরা। ভেনাসের প্রভাবে এরা সাধারণত সৌন্দর্য, রহস্যময়তা আর দৈহিক আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। সঙ্গী-সঙ্গিনীদের শুধু একটু হাসি, উদ্দেশ্য পূর্ণ চাহনি, গাঢ় আলিঙ্গন বা হাতে মৃদু স্পর্শের মাধ্যমেই পটিয়ে ফেলতে পারে তুলা পুরুষ বা মহিলারা। দেহজ প্রেমের ক্ষেত্রে তারা আপনাকে বশে আনতে চাইবে না বরং আপনাকে দেবে ভালবাসার সুখ সাগরে অবাধ স্বাধীনতা। এভাবেই তুলারা অর্জন করতে পারবে আপনার বিশ্বাস আর দৈহিক সম্পর্কের চরম উৎকৃষ্টতা।

 

বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর-২২ নভেম্বর)
প্রতিটি বৃশ্চিকের মধ্যেই যেন লুকিয়ে আছে একেকটি অ্যাটম বোমার শক্তি। প্রবল আবেগ আর উন্নাসিকতার জন্য বৃশ্চিক জাতক-জাতিকা বেশ বিখ্যাত বা কুখ্যাত। যৌন জীবনে তা অনুদিত হয় উত্তেজনায় ভরপুর যন্ত্রণা আর উচ্ছ্বাসের সংমিশ্রণে এক আকর্ষণীয় মেলোড্রামায়। একজন বৃশ্চিকের দৃষ্টি ঠিক একটি ঈগলের মতো, যা সবকিছু ভেদ করে আপনার কিছু বোঝার আগেই করে ফেলবে বশীভূত।

ধনু (২৩ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর)
ধনু রাশির কাউকে পার্টনার হিসেবে পাওয়াটা বেশ মজার অভিজ্ঞতার সূচনা করবে, এটি বলার অপেক্ষা রাখে না। কারণ সাধারণ বেশ অ্যাথলেটিক গড়নের ধনুরা বেশি রসবোধসম্পন্ন, বর্হিমূর্খী এনাজের্টিক এবং আশাবাদী। আর এসব গুন আপনার কাছে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে তারা প্রকাশ করবে ঠাট্টা-তামাশা, মজার সব সেক্সুয়াল অ্যাক্ট আর বিভিন্ন ফোর প্লের মাধ্যমে। এহেন আকষর্ণীয় সঙ্গী-সঙ্গিনী থেকে কীভাবে দূরে থাকা সম্ভব?

মকর (২২ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি)
মকর রাশির জাতক-জাতিকা কোনো কিছু করার আগে অনেক ভেবেচিন্তে পা ফেলে, আর কেস যদি হয় যৌনতাভিষয়ক, তাহলে, তো কথাই নেই। হয়তো শুরুর সময়টাতে আপনাকেই নিতে হবে কিছু আগ্রহী ভূমিকা কিন্তু এরপর শুধু ফান-রাইড, কারণ আপনার মকর কাউন্টারপার্ট আপনার দৈহিক সুখ স্বাচ্ছন্দ্রের প্রতি থাকবে অতিমাত্রায় মনোযাগী। হয়তো প্রেমিক হিসেবে সিংহ বা বৃশ্চিকের মতো উত্তেজনাকর তারা নয়, কিন্তু মকর প্রেমিকের মতো নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বাসী অপর কাউকে খুঁজে পাওয়াটা হবে বেশ দুষ্কর।

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি)
ইউরেনাস প্রভাবম্বিত কুম্ভ রাশির ছেলেমেয়েরা প্রখর বুদ্ধিমত্তার অধিকারী এক নিজেদের প্রেমিক-প্রেমিকার প্রতি বিশেষ যত্নবান। আপনি যেভাবে এদের পেতে চান ঠিক সেভাবেই এরা আপনার কাছে ধরা দেবে। এথন আপনার ওপরই নির্ভর করছে এদের বোরিং পার্টনার হিসেবে দূরে ঠেলে দেয়া বা বিশ্বস্ত সঙ্গী হিসেবে কাছে টেনে নেয়া।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ)
চাতুর্যপূর্ণ কথা, আপাদমস্তক, দৈহিক আর্কষণে পরিপূর্ণ এবং আবেগ দৃষ্টি দিয়ে বন্দ করার চেষ্টা; এ সবকিছুই আপনি পাবেন দেহজ প্রেমের আরেক হান্টার মীন রাশির মানুষের কাছে। তার এতটুকু স্পর্শেও আপনি উত্তেজনায় অস্থির হয়ে উঠতে পারেন অথবা তার প্রগাঢ় আলিঙ্গণ আপনাকে নিয়ে যেতে পারে অন্য জগতে। মীনের সঙ্গে ভালবাসার প্রতিটি মুহূর্তের যেন সুরের মূর্ছনা।

সূত্র: কালেরকণ্ঠ

মুখে কালো দাগ ? রাতেই সেরে ফেলুন ছোট্ট একটি রূপচর্চা

লাইফস্টাইল ডেস্কঃব্রণের দাগ হোক বা অন্য কারণে হওয়া দাগ, আপনার সুন্দর চেহারায় কালো দাগ মোটেও মানানসই নয়। কুৎসিত কালো দাগ যে কোন সুন্দর চেহারাকেও মলিন করে দেয়। অনেক ক্রিম মেখে, পার্লারে ট্রিটমেন্ট করিয়েও কাজ হচ্ছে না? তাহলে মুখের দাগ দ্রুত দূর করতে অবলম্বন করুন এই উপায়টি। রোজ রাতে করুন এই ছোট্ট একটু রূপচর্চা। অল্প কিছুদিনের মাঝেই মুখের দাগ মিলিয়ে যেতে শুরু করবে।

কী ব্যবহার করবেন?

মুখের দাগ দূর করতে আমরা ব্যবহার করবো লেবু। একটু লক্ষ্য করলেই দেখবেন যে সকল অ্যান্টি স্পট ফেয়ারনেস ক্রিম লেবুর কথা বলে। কারণ একটাই, লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচ হিসাবে কাজ করে। তবে লেবু এই রূপচর্চাটি কেবল রাতের বেলায় করতে হবে এই কারণে যে সূর্যের আলো আপনার ত্বকে রিঅ্যাকশন করতে পারে। রাতের বেলায় রূপচর্চাটি করলে সূর্যের আলো বা গরমে ত্বকের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই এবং ত্বক সম্পূর্ণ ৮-১০ ঘণ্টা পাচ্ছে দাগ দূর করার জন্য।

কী করবেন?

দুটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন আপনি। যদি আপনার ত্বক হয়ে থাকে স্বাভাবিক, তাহলে মাত্র ৫ মিনিটের একটি কাজ করতে হবে আপনাকে। যদি শুষ্ক বা সেনসিটিভ হয়ে থাকে, তাহলে সময় লাগবে ৩০ মিনিট।

  • -মুখ খুব ভালো করে পরিষ্কার করে নিন। ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন।
  • -যদি স্বাভাবিক বা তৈলাক্ত ত্বক হয়, তাহলে তাজা পাকা লেবুর রস (যে লেবু পেকে হলদে হয়ে গেছে, অর্থাৎ লেমন) সরাসরি মুখের কালো দাগে লাগিয়ে নিন। লেবুর রসের সাথে সামান্য মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। তারপর শুকাতে দিন। এবং লেবুর রস মুখে নিয়েই ঘুমিয়ে যান। স্বাভাবিক বা তৈলাক্ত ত্বকে কোন সমস্যা হবে না। সকালে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ মুছে নিন।
  • -আর যদি শুষ্ক বা সেনসিটিভ ত্বক হয়, তাহলে পাকা লেবুর রসের সাথে মুলতানি মাটি ও মধু মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ ধোয়া মুখে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রাখুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের কালো দাগ মিলিয়ে যাবে।

টিপস-
ত্বকে লেবুর রস দেয়ার পর যদি কোন রকম অস্বস্তি অনুভব করেন, তাহলে অবিলম্বে মুখে ধুয়ে ফেলুন এবং পুনরায় ব্যবহার করবেন না।