পুরস্কার পেলেন ফারুক চৌধুরী ও শাহীন আখতার

ZZERZ

২০১৪ সালের জন্য আইএফআইসি পুরস্কার পেলেন সাবেক কূটনীতিক ফারুক চৌধুরী ও লেখক শাহীন আখতার। গতকাল শনিবার এক অনুষ্ঠানে দুই লেখকের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। বই দুটো প্রকাশ করেছে প্রথমা প্রকাশন।
ফারুক চৌধুরী তাঁর আত্মজীবনী জীবনের বালুকাবেলায় এবং শাহীন আখতার তাঁর উপন্যাস ময়ূর সিংহাসন-এর জন্য এ পুরস্কার পেয়েছেন। প্রধান অতিথি হিসেবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত লেখকদের হাতে পাঁচ লাখ টাকার চেক, একটি ক্রেস্ট ও সম্মাননাপত্র তুলে দেন। তিনি বলেন, আইএফআইসি ব্যাংক সাহিত্য পুরস্কার অর্থমানের বিচারে দেশের সব থেকে বড় সাহিত্য পুরস্কার। এই পুরস্কার সাহিত্যিকদের অনুপ্রাণিত করবে। তিনি এই পুরস্কারের ধারাবাহিকতা ও গুণগত মান বজায় রাখার আহ্বান জানান। সভাপতির বক্তব্যে ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, এই পুরস্কার সাহিত্যিকদের যে অনুপ্রেরণা দেবে তার স্থায়ী ফল ভবিষ্যতে পাওয়া যাবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বেঙ্গল গ্রুপের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের বলেন, সাহিত্যক্ষেত্রে আইএফআইসি ব্যাংক প্রবর্তিত এই পুরস্কারটি অর্থ ও গুণমানের বিচারে ইতিমধ্যেই সম্মানজনক পুরস্কার হিসেবে স্বীকৃত হয়েছে। স্বাগত বক্তব্যে ব্যাংকের চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান বলেন, ব্যাংক যত দিন থাকবে তত দিন এই পুরস্কার অব্যাহত থাকবে।
পুরস্কারের প্রতিক্রিয়ায় ফারুক চৌধুরী বলেন, বৃদ্ধ বয়সেও পুরস্কারপ্রাপ্তি আনন্দদায়ক। দীর্ঘ কর্মজীবন থেকে অবসর নেওয়ার পর তিনি লেখালেখি শুরু করেছেন। তাঁর কূটনৈতিক জীবনের অভিজ্ঞতা এবং তাঁর জীবনকালে ব্রিটিশ শাসন থেকে পাকিস্তান এবং তারপর স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের গুরুত্বপূর্ণ পালাবদলের প্রক্রিয়ায় ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা, অনুভব তিনি বইটিতে তুলে ধরেছেন।
শাহীন আখতার বলেন, উপন্যাসটিতে ব্রিটিশ ঐতিহাসিকেরা মোগলদের নিয়ে যে বিকৃত ইতিহাস রচনা করেছেন সেখান থেকে সরে এই উপন্যাসে ঐতিহাসিক সত্যকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।
পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জনপ্রশাসনসচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মজুমদার, আইএফআইসি ব্যাংকের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব জামাল আহমেদ, সাবেক পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ আলি খান। ধন্যবাদ জানান ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ এ সারওয়ার।
এর আগে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত পুরানা পল্টনে আইএফআইসি ব্যাংকের নবনির্মিত বহুতল করপোরেট ভবনেরও আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

মামুনকে নিয়ে ‘কফিটেবিল বুক’

XDRZ

মিলনায়তনের প্রবেশমুখে অতিথিদের অভ্যর্থনা জানাচ্ছিলেন নাট্যজন মামুনুর রশীদ। তাঁদের হাতে তুলে দিচ্ছিলেন শুভেচ্ছা উপহার। মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে অবিরাম চলছে তাঁর নাট্যযুদ্ধ। সেসব নিয়েই একটি ‘কফিটেবিল বুক’-এর মোড়ক খোলা হবে। সেই আয়োজনে নাট্যকলা, চিত্রকলা ও সংগীতের মানুষেরা হাজির হয়েছিলেন শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে।
গতকাল বিকেলে এই বইয়ের মোড়ক উন্মোচনে হাজির হয়েছিলেন নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, নাসির উদ্দীন ইউসুফ, রাজনীতিক হায়দার আকবর খান রনো, চিত্রশিল্পী রফিকুন নবী। অধ্যাপক আব্দুস সেলিমের সঞ্চালনায় মোড়ক উন্মোচনের এই আয়োজন হয়ে ওঠে উন্মুক্ত আড্ডা।
মামুনুর রশীদের অবিরাম নাট্যযুদ্ধের রঙিন জীবন নিয়ে তাই বাংলা পাবলিকেশনস প্রকাশ করেছে এই ‘কফিটেবিল বুক’। মামুনুর রশীদ থিয়েটারের পথে বইটি ও মামুনকে নিয়ে বলতে গিয়ে রফিকুন নবী বলেন, ‘বইটি উল্টেপাল্টে দেখে মনে হলো, মামুন কবে আত্মজীবনী লিখবেন। তাঁর প্রেম নিয়ে অনেকেরই আগ্রহ আছে।’ রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘পরের প্রজন্মের জন্য বইটি গুরুত্বপূর্ণ।’
নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, ‘পঁয়তাল্লিশ বছর তাঁর সান্নিধ্য পেয়েছি। বাংলাদেশের থিয়েটারে তাঁর মতো মার্কসিস্ট পাওয়া যায় না।’
মামুনুর রশীদ বলেন, ‘সৃষ্টিশীল মানুষের প্রেম থাকে মৃত্যু অবধি। নিজের জীবনের ওই দিকগুলো নিয়ে নির্মলেন্দু গুওণ ও সেলিম আল দীন লিখেছেন। একসময় হয়তো আমিও লিখব।’
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী।

নাচে-গানে শুরু যুবনাট্য উৎসব

5R

তিনটি মিলনায়তনে আট দিন ধরে মঞ্চস্থ হবে তরুণদের নাটক। উৎসবমুখর সেই আয়োজন। একটি শোভাযাত্রার পর গতকাল শনিবার বিকেলে নাচ, গান ও অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী দিয়ে শুরু হয় ‘৫ম জাতীয় যুবনাট্য উৎসব ২০১৬’।
শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনের প্রবেশমুখে উদ্বোধন করা হয় এই আয়োজন। উদ্বোধন করেন আন্তর্জাতিক শিশু নাট্যোৎসবের প্রবক্তা ও জার্মান অ্যামেচার থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতি নরবার্ট রাডারমাখার।
বিষয়:
সংস্কৃতি

পর্দার পেছনের গল্প

2q

মেরিল–প্রথম আলো পুরস্কারের নেপথ্যের গল্প নিয়ে মাছরাঙা টেলিভিশনে আজ রাত নয়টা ২০ মিনিটে প্রচারিত হবে অনুষ্ঠান ‘পর্দার পেছনের গল্প’। আজকের অতিথি মডেল ও অভিনয়শিল্পী মোনালিসা। মেরিল–প্রথম আলো পুরস্কার আয়োজনে দুবার দর্শকভোটে সেরা মডেলের পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। এই অনুষ্ঠানের মঞ্চে নাচ করেছেন সাতবার। ছিলেন সহ-উপস্থাপক। সেসব অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন আজকের অনুষ্ঠানে।
অনুষ্ঠানটি গ্রন্থনা করেছেন রুম্মান রশীদ খান, প্রযোজনা করেছেন মনিরুজ্জামান খান। উপস্থাপনা করেছেন মুনমুন।

জাহিদ হাসানের অঙ্গীকার!

rseh

আপনারা এই পণ্য ব্যবহার করে যদি কোনো সমস্যার মুখোমুখি হন, যদি কোথাও সমাধান না পান, আমাকে বলবেন। আমি নিজে এই সমস্যা নিয়ে এমডিসহ সবার সঙ্গে কথা বলব।’ ভিশন ইলেকট্রনিকসের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে চুক্তি স্বাক্ষর করে এভাবেই কথা দিলেন নন্দিত অভিনেতা জাহিদ হাসান। বললেন এই পণ্য নিয়ে নিজের অভিজ্ঞতার কথাও। গতকাল শনিবার রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় আয়োজন করা হয়েছিল এই চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের। আগামী পাঁচ বছরের জন্য আরএফএল গ্রুপের ইলেকট্রনিকস পণ্য ভিশনের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করবেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ভিশনের বিক্রয় ও বিপণন ব্যবস্থাপক মাহবুবুল ওয়াহিদসহ প্রাণ–আরএফএল গ্রুপের কর্মকর্তারা।
অনুষ্ঠানে জাহিদ হাসান বলেন, ‘এর আগে আমি বিদেশি একটি কোম্পানির শুভেচ্ছাদূত হওয়ার অফার পেয়েছিলাম। কিন্তু আমার বরাবরই মনে হয়েছে যে প্রতিষ্ঠান বা পণ্যের শুভেচ্ছাদূত হব, সেটি যেন ভালো মানের দেশীয় পণ্য হয়। সেদিক থেকে ভিশন আমার পছন্দ হয়েছে। এ কারণেই আগামী পাঁচ বছরের জন্য আমি চুক্তিবদ্ধ হলাম।’
অনুষ্ঠানে ভিশনের নতুন টিভি বিজ্ঞাপনও দেখানো হয়। কথা বলেন কর্মকর্তারা। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন শ্রাবণ্য তৌহিদা।

মনোজ বাজপেয়ি পাচ্ছেন দাদাসাহেব সম্মাননা

esZwa

ভারতের চলচ্চিত্রের শক্তিমান অভিনেতা মনোজ বাজপেয়ি ‘সেরা অভিনেতা’ (সমালোচক পুরস্কার) হিসেবে পেতে যাচ্ছেন দাদাসাহেব ফালকে সম্মাননা।

‘আলীগড়’ ছবিতে অসাধারণ অভিনয়ের সুবাদে মনোজের হাতে উঠতে যাচ্ছে ভারতের এই সম্মানজনক পুরস্কার। ‘আলীগড়’ ছবির নির্মাতা হানসাল মেহতা এক টুইট বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন।

গত শুক্রবার রাতে মেহতা তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এক টুইট বার্তায় লেখেন, ‘সেরা অভিনেতা (সমালোচক পুরস্কার) হিসেবে মনোজ বাজপেয়ি দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন।’

এদিকে মনোজ বাজপেয়ি দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার পাওয়ার পর জানিয়েছেন, তিনি এ সম্মাননা পাওয়ায় অত্যন্ত আনন্দিত। মনোজ সবাইকে তাঁর প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

এই তারকা অভিনেতা বলেন, ‘আমার প্রতি এই ভালোবাসা প্রকাশের জন্য আপনাদের সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আমি অত্যন্ত সম্মানিত বোধ করছি।’

আজ রোববার দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার প্রদানের এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে মনোজের হাতে এই সম্মাননা তুলে দেওয়া হবে।

শিগগিরই মনোজ বাজপেয়িকে দেখা যাবে ‘ট্র্যাফিক’ ছবিতে। এ ছবিতে মনোজ একজন ট্র্যাফিক কনস্টেবলের চরিত্রে অভিনয় করবেন। ইন্দো-এশিয়ান নিউজ।

‘প্রিয়াঙ্কা রক’ এমনই প্রশংসা হলিউড তারকা ডোয়েনের!

া্রিু

একের পর এক অ্যাচিভমেন্ট। কখনও হলিউড ছবি তো কখনও রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে পুরষ্কার। জীবনের সেরা সময়ে বিচরণ করছেন বলিউড সুন্দরী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। বলিউড থেকে কয়েকদিনের ছুটি নিয়ে তিনি এখন ব্যস্ত হলিউডে। আর সেখানেও তাঁর প্রতিভায় মুগ্ধ সবাই। তাঁর প্রতিভার প্রশংসা করলেন হলিউড তারকা ডোয়েন জনসন।

বলিউড ডিভা প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার প্রশংসা করে ডোয়েন বললেন, ‘প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার সঙ্গে দেখা হওয়ার আগে ওর নাম আমি শুনেছিলান। প্রিয়াঙ্কা খুবই সুন্দরী এবং প্রতিভাবান। বলিউডে ৫০-এরও বেশি ছবি করে ফেলেছে ও। এটা একটা খুব বড় অ্যাচিভমেন্ট। শুধু ছবিই যে করে ফেলেছে তাই নয়, পেয়েছে অনেক পুরষ্কারও। ওর একটা লক্ষ্য আছে। আর সেখানে পৌঁছতে যত কঠিন পরিশ্রমই করতে হোক না কেন, প্রিয়াঙ্কা সেটা করবেই। ওর এই গুণই আমাকে মুগ্ধ করেছে। বেওয়াচে ওর সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমি খুবই খুশি। ওর সঙ্গে অনেক সুন্দর সুন্দর মুহূর্ত রয়েছে। ওকে দেখে মানুষ প্রেরণা পায়।’ সহঅভিনেতা ডোয়েনের প্রশংসায় প্রিয়াঙ্কা নিজেও খুব খুশি। তাঁদের দু’জনকে খুব শীঘ্রই ‘বেওয়াচে’ দেখা যেতে চলেছে।

সূত্র: জিনিউজ

মিউজিক ভিডিওতে গান গাইলেন আলিয়া ভাট!

u7tfry

তাঁর গানের গলাটি খাসা। এর আগে হাইওয়ে এবং হাম্পটি শর্মা কি দুলহানিয়া ছবিতে গান গাইতে দেখা গিয়েছে আলিয়া ভাটকে। এবার পুরোপুরি মিউজিক ভিডিওতে গান গাইতে দেখা যাবে মহেশ ভাটের কন্যাকে মিঠুনের সুরে মনোজ মুনতাশিরের লেখা রোম্যান্টিক গানে গলা মেলাবেন বলিউডের নিউ এজ সেনসেশন আলিয়া। মিউজিক ভিডিওটি প্রযোজনা করবেন ভূষণ কুমার।

সুরকার মিঠুন বলেছেন, ‘আলিয়ার গানের গলাটি খুবই অন্যরকম। প্রথাগত গানের শিক্ষা না থাকলেও গানের ব্যাপারে খুবই সিরিয়াস আলিয়া।’

প্রিয়ঙ্কা চোপড়া, সোনাক্ষী সিনহা, জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজের মতো বলি-সুন্দরীরা এর আগে গান গেয়েছেন। এবার পালা আলিয়া ভাটের। নিঃসন্দেহে এই মিউজিক ভিডিওতে গলা মেলানো আলিয়ার কেরিয়ারে নয়া পালক যোগ করল।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

কি আছে ডেমি মুরের ৭৫ মিলিয়ন ডলারের পেন্টহাউজে?

আমেরিকার ম্যানহাটানের বিখ্যাত একটি ভবন স্যান রিমো। ২৭ তলা ভবনের চূড়ায় রয়েছে হলিউড তারকা ডেমি মুরের বিলাসবহুল পেন্ট হাউজ। এটি বিক্রি হবে। দাম হাঁকা হয়েছে ৭৫ মিলিয়ন ডলার! একবছর আগে থেকে দরকষাকষি চলছে। যদি এ দামের আশপাশেও বিক্রি হয়, তবে এই ভবনে কোনো অ্যাপার্টমেন্ট ২৬.৪ মিলিয়ন ডলারে বিক্রির রেকর্ডটি ভেঙে যাবে। ৭ হাজার বর্গফুটের পেন্টহাউজটি…

শাহরুখ ‘ফ্যান’ দেখালেন সাকিবদের

gft

কলকাতা নাইট রাইডার্সের খেলোয়াড়দের নিজের সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি দেখার সুযোগ করে দিলেন শাহরুখ খান। সাকিব আল হাসানরা তাঁর নতুন ছবি ‘ফ্যান’ দেখলেন মোটামুটি রাজসিকভাবেই। হাত-পা ছড়িয়ে পপকর্ন চিবোতে চিবোতে ‘ফ্যান’ দেখে মুগ্ধ সবাই।
দলের বোলিং কোচ ওয়াসিম আকরাম ও অধিনায়ক গৌতম গম্ভীরের মাঝের আসনে বসে ছবিটি দেখেছেন সাকিব। খুব বেশি কিছু না বললেও ‘ফ্যান’ দেখে মুগ্ধ সাকিব। বলেছেন, ‘খুবই ভালো ছবি।’
কেবল উপমহাদেশীয় ক্রিকেটাররা নন, ‘ফ্যান’ দেখেছেন অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকার খেলোয়াড়েরাও। ব্র্যাড হগ, জ্যাক ক্যালিসদের জন্য ব্যবস্থা ছিল সাব-টাইটেলের।
ক্রিকেটের বাইরে গিয়ে সন্ধ্যাটি কেকেআর ক্রিকেটারদের জন্য ছিল দারুণ উপভোগ্য।

গোল করানোতেও মেসির রেকর্ড

্চ

বুধবার দেপোর্তিভো লা করুনিয়ার ওপর দিয়ে ঝড় বয়ে গেছে। লুইস সুয়ারেজ নামের ঝড়ে সেদিন তছনছ হয়ে গিয়েছিল দেপোর্তিভো। ৪টি গোল করে আর ৩টি গোলে সহযোগিতা করে সেদিন সব আলো একাই কেড়ে নিয়েছেন এই উরুগুইয়ান ফরোয়ার্ড। সেদিন একটি গোল করেও তাই আড়ালেই থেকে যেতে হয়েছে লিওনেল মেসিকে। তবে একই ম্যাচে সুয়ারেজকে দুইটি গোল বানিয়ে দিয়ে নতুন এক রেকর্ড গড়েছেন মেসি।
সেদিনের ওই ২টি ‘অ্যাসিস্টে’ রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক মিডফিল্ডার মিচেল গঞ্জালেজের রেকর্ড ভেঙেছেন মেসি। লা লিগায় মোট ১২০টি গোলে সহযোগিতা করেছিলেন গঞ্জালেজ। আর বুধবারের ম্যাচের পর মেসির এই মৌসুমে ‘অ্যাসিস্ট’ ১১ টি, পুরো ক্যারিয়ার মিলিয়ে সংখ্যাটা ১২১। অবশ্য এই রেকর্ড নিয়ে কিছুটা সন্দেহ থেকে যাচ্ছে, ছোট একটি কারণে। গোলে সহযোগিতা করার হিসাব রাখার ব্যাপারটি এখন গুরুত্ব দিয়ে দেখা হলেও, একসময় অ্যাসিস্টের হিসাব রাখার কথা কেউ ভাবত না। তবে লা লিগায় যত দিন ধরে এই পরিসংখ্যান রাখা হচ্ছে, সেই হিসেবে রেকর্ডটি এখন মেসিরই।
লা লিগার ইতিহাসের সর্বোচ্চ গোল করার রেকর্ড তো ভেঙেছেন অনেক আগেই। এবার গোলে সহযোগিতায়ও সবাইকে ছাড়িয়ে গেলেন মেসি। সূত্র: গোলডটকম

নৃত্যাঞ্চল উৎসবের উদ্বোধক লীলা স্যামসন

ৃয

নৃত্যাঞ্চল উৎসব উদ্বোধন করবেন ভারতের পদ্মশ্রী খেতাব পাওয়া ভরতনাট্যমের গুরু ও প্রখ্যাত নৃত্যশিল্পী লীলা স্যামসন। বিশেষ অতিথি থাকবেন প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী, অসংখ্য নৃত্যানুষ্ঠান ও নৃত্যনাট্যের সফল কোরিওগ্রাফার মুস্তাফা মনোয়ার। উৎসবে নৃত্যগুরু রাহিজা খানম ঝুনুকে সম্মাননা জানানো হবে।
২৭ থেকে ২৯ এপ্রিল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় আর নন্দন মঞ্চে আয়োজন করা হয়েছে এই উৎসব। এ উপলক্ষে আজ শনিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। এখানে উপস্থিত ছিলেন নৃত্যাঞ্চলের সমন্বয়কারী মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর এবং পরিচালক শিবলী মহম্মদ ও শামীম আরা নীপা।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, উৎসবের প্রথম দিন ‘কত্থক নৃত্য সন্ধ্যা’য় নাচ করবেন নৃত্যাঞ্চল ও নৃত্যাঞ্চল স্কুলের ২৫০ জন নৃত্যশিল্পী ও ছাত্রছাত্রী। আয়োজনটি পরিচালনা করবেন শিবলী মহম্মদ। দ্বিতীয় দিন নৃত্যাঞ্চল ও সৃষ্টি কালচারাল সেন্টার যৌথভাবে মঞ্চস্থ করবে ‘আলীবাবা ও চল্লিশ চোর’ অবলম্বনে নৃত্যনাট্য ‘বাদী-বান্দার রূপকথা’। নৃত্যনাট্যটি পরিচালনা করেছেন সুকল্যাণ ভট্টাচার্য। এতে অভিনয় করবেন শিবলী মহম্মদ, শামীম আরা নীপা, আনিসুল ইসলাম হীরু, সুকল্যাণ ভট্টাচার্য ও ডলি ইকবাল। সঙ্গে থাকছেন নৃত্যাঞ্চল ও সৃষ্টি কালচারাল সেন্টারের ৮০ জন নৃত্যশিল্পী। উৎসবের শেষ দিন ‘বিশ্ব নৃত্য দিবস’ উপলক্ষে থাকছে সুবিধাবঞ্চিত ও বিশেষ শিশুদের নৃত্যানুষ্ঠান। ঢাকা ও ঢাকার বাইরের বিভিন্ন স্কুল ও সংগঠনের ২৫ জন ছাত্রছাত্রীর সঙ্গে থাকবেন নৃত্যাঞ্চলের ছাত্রছাত্রীরা।

উৎসব উপলক্ষে মননশীল প্রবন্ধ নিয়ে একটি স্মরণিকা প্রকাশ করা হবে। প্রকাশ করা হবে একটি পোস্টারও।

নিমন্ত্রণে চুলের সাজ

t56ffg

বছরের এই সময়টা যেন অলিখিত নিমন্ত্রণের মৌসুম। একটু ঠান্ডা ঠান্ডা ভাব পড়তে শুরু করা মানেই জমকালো দাওয়াত কিংবা বিয়ের নিমন্ত্রণ। মেকআপ বা পোশাক তো ঠিক হলো, চুল সাজাতে গিয়ে বাধে বিপত্তি। কেমন স্টাইল চলছে, কোন ধরনের চুলে কেমন স্টাইল তা দেখে নিন এবার। পরামর্শ দিয়েছেন রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন। তিনি বলেন, ‘খোলা চুলই মেয়েদের বেশি পছন্দ বলে মনে হয়। আর যেহেতু শীত প্রায় চলে এল তাই এখন কোঁকড়ানো স্টাইল দেখা যাবে।’
আজকাল পোশাকের সঙ্গে চুলের স্টাইলের কোনো বাঁধাধরা নিয়ম নেই। খোলা চুল তো আছেই, তাতেও রয়েছে নানা কায়দা। সোজাসাপটা খোলা চুলে বদলে দেখা যাচ্ছে নানা বৈচিত্র্য। এ ছাড়া নানা রকম বেণি, এলোমেলো স্টাইল, কার্ল, সোজা সবই এখন চলছে। তাই চুল বাঁধতে পারেন ইচ্ছেমতো। তবে নিজের সঙ্গে যা মানানসই সেই স্টাইলকেই প্রাধান্য দিন।
মডেল: প্রিয়তিমাঝারি চুলের স্টাইল
মাঝারি চুলে ইচ্ছামতো স্টাইল করা যায়। বিশেষ দিনে অনেক সময় পারলারে গিয়ে চুল বাঁধা সম্ভব না। তাই আফরোজা পারভিন বলেন, ‘চাইলে আগের দিন রাতে চুল পেঁচিয়ে রাখা যেতে পারে। পরদিন সকালে চুল খুলে দেখবেন খুব সুন্দর একটা কোঁকড়া ভাব আসবে।’
ছোট চুলের স্টাইল
ছোট চুলের স্টাইলে তেমন বৈচিত্র্য নেই, এমন কথাই প্রচলিত। তবে এখন ছোট চুলের স্টাইলেও এসেছে অনেক বৈচিত্র্য। বিভিন্ন ধরনের স্টাইলিশ ব্যান্ড দিয়েও সাজে ভিন্নতা আনা যেতে পারে। কার্ল করলেও ভালো দেখাবে।
মডেল: আশাখোলা চুলে স্টাইল
চুল খোলা রাখলে একদম সোজাসাপটা ছেড়ে না রেখে ব্লো ড্রাই করে নিন। কিংবা রোলার স্টাইলার দিয়ে হালকা কুঁকড়ে নিন। পুরো চুল স্পাইরালও করতে পারেন। ওপরের দিকে সোজা রেখে নিচের দিকে কোঁকড়া করে রাখতে পারেন।
ছবি: নকশালম্বা চুলের স্টাইল
লম্বা চুলে বেণির শোভা দেখতে দারুণ লাগে। একসময় সালোয়ার-কামিজ বা শাড়ির সঙ্গেই করা হতো বেণি। ইদানীং স্কার্ট, টপ বা ড্রেসের সঙ্গেও দিব্যি বেণি করছেন অনেকে। তবে সাদামাটা বেণির দিন ফুরিয়েছে বলা যায়। নানা স্টাইলেই বেণি করা যায় যেমন: ফ্রেঞ্চ বেণি, মারমেইড বেণি ইত্যাদি। মাথার মাঝখান থেকে কিছু চুল নিয়ে টুইস্ট করে বেণি বা পনিটেইল করে নিতে পারেন। চাইলে খোঁপাও করতে পারেন।
জেনে নিন
উৎসবের আগে পারলারে গিয়ে চুলের ধরন বুঝে হেয়ার ট্রিটমেন্ট দিয়ে নিন। কিংবা বাড়িতেই করে নিন চুলের যত্ন।
তাৎক্ষণিকভাবে চুল মসৃণ দেখাতে আধা মগ পানিতে এক চা-চামচ মধু মিশিয়ে তা দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।
চুলে স্টাইল করার আগে হেয়ার ক্রিম লাগিয়ে নিন।
বিভিন্ন স্টাইল করতে গিয়ে চুলে অনেক ধকল পড়বে। তাই উৎসব শেষে চুলে হট ওয়েল ম্যাসাজ করুন।

শেক্সপিয়ার সপ্তক

s45r

৪০০ বছর আগে এই দিনটিতেই মারা গিয়েছিলেন শেক্সপিয়ার। কিন্তু কী অসম্ভব আলোকোজ্জ্বল তাঁর জীবন যে আজও পৃথিবীর প্রতিটি কোণে এখনো মঞ্চনাটকের বড় অবলম্বন হয়ে বেঁচে আছেন তিনি। বাংলাদেশও তার ব্যতিক্রম নয়। এই দিনটিকে স্মরণ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ আজ মঞ্চে আনছে ‘শেক্সপিয়ার সপ্তক’ নামের পরিবেশনা। নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে শেক্সপিয়ারের সাতটি নাটকের কিছু অংশ নিয়ে সাজানো হয়েছে এই অনুষ্ঠান। আজ ও আগামীকাল সন্ধ্যা সাতটা ৩০ মিনিটে ব্রিটিশ কাউন্সিলে গেলে যে কেউ ম্যাকবেথ, হ্যামলেট, ওথেলো, রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট, টেমিং অব দ্য শ্রু, অ্যাজ ইউ লাইক ইট, এ মিড
সামার নাইটস ড্রিম নাটকের অংশ নিয়ে গড়ে ওঠা নাট্যমালাটি দেখতে পাবেন।
.বিভাগের চেয়ারম্যান সুদীপ চক্রবর্তী নির্দেশনা দিয়েছেন এই নাট্যসপ্তকের। প্রতিটি আলাদা মঞ্চস্থ হবে। ব্রিটিশ কাউন্সিলের একাধিক আয়তনে একই সঙ্গে শুরু হবে তিনটি নাটক। এরপর ২০ মিনিটের বিরতি। দর্শকেরা স্থান বদল করে অন্য নাটক দেখবেন এরপর। এভাবে একসময় সাতটি নাটকের প্রদর্শনীই উঠবে মঞ্চে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স বিভাগে নাটকের মহড়া দেখতে গিয়ে বোঝা গেল, বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা কী অসামান্য পরিশ্রমই না করছেন! চারটি ট্র্যাজেডি আর তিনটি কমেডির নির্বাচিত অংশে নাটকের মূল ভাবনা ধরে রাখা হয়েছে। কমেডিগুলোর কোনো কোনোটিতে আঞ্চলিক ভাষার সুপ্রয়োগ দেখা গেছে। মৃত্যুদিনে প্রযোজনাটি হয়ে উঠতে পারে কিংবদন্তি এই নাটকের মানুষের জন্য সাহসী বিনম্র এক অর্ঘ্য।
এই প্রযোজনায় সহযোগিতা করেছে ‘ব্রিটিশ কাউন্সিল শেক্সপিয়ার লিভ্স গ্লোবাল প্রোগ্রাম ২০১৬’।

লড়াইয়ের আগেই ‘লড়াই’ শেষ

vgc

মুখোমুখি মাশরাফি বিন মুর্তজার কলাবাগান ক্রীড়াচক্র ও তামিম ইকবালের আবাহনী। ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগের নতুন মৌসুমের উদ্বোধনী দিনে তাই ফতুল্লার এই ম্যাচকে ঘিরেই ছিল সর্বোচ্চ কৌতূহল। গ্রীষ্মের প্রচণ্ড খরতাপ উপেক্ষা করে কয়েক শ দর্শকের ম্যাচ দেখতে আসাটাই দিল প্রমাণ। কিন্তু সবাই হতাশই হলেন একতরফা ম্যাচ দেখে। যে ম্যাচে কাল কলাবাগানের ১৪০ রান আবাহনী টপকে গেছে ৭ উইকেট ও ১২৯ বল হাতে রেখেই। আর তামিম-মাশরাফির ম্যাচের নায়ক ‘উপেক্ষিত’ জুবায়ের হোসেন।
মেঘলা আকাশ সঙ্গে দখিনা হাওয়া, ম্যাচের শুরুতে সহনীয় আবহাওয়াই ছিল। টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া কলাবাগানের শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই উইকেট নেই। তাসকিন আহমেদের করা অফ স্টাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মেরে উইকেটকিপার লিটন দাসকে ক্যাচ দিয়েছেন শাদমান ইসলাম। অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের দায়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ তাসকিন ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরলেন উইকেট মেডেন নিয়ে। কলাবাগানের স্কোরবোর্ডে প্রথম রান জমা পড়ে ইনিংসের নবম বলে।
রানের খাতা খুলতেই যা একটু দেরি হয়েছে, না হলে ভালোই গতি ছিল কলাবাগানের ইনিংসে। প্রথমে জসীমউদ্দিন ও পরে তাসামুল হককে নিয়ে রানের চাকাটা সচল রাখেন জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। দ্বিতীয় উইকেটে জসীমউদ্দিনকে নিয়ে ৩৪ বলে ৩৭ ও তৃতীয় উইকেটে তাসামুলের সঙ্গে ৫৭ বলে ৪১ রান যোগ করেন তিনবার জীবন পাওয়া মাসাকাদজা। ১৫ ওভার শেষে কলাবাগানের স্কোর ২ উইকেটে ৭৭।
অবস্থাটা পাল্টে যায় ১৬তম ওভারে জুবায়ের হোসেন আক্রমণে আসতেই। গত মৌসুমে ঢাকা লিগে ম্যাচের পর ম্যাচ বাইরে বসে থাকা জাতীয় দলের এই লেগ স্পিনার তৃতীয় বলেই গুগলিতে বিভ্রান্ত করেন মাসাকাদজাকে। পরের ২ ওভারে ২ উইকেট—লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের সেরা বোলিংই হয়ে যায় জুবায়েরের। পরে উইকেট নিয়েছেন আরও ৩টি। টানা ৯.১ ওভারের এক স্পেলেই ৩৪ রানে ৬ উইকেট এই লেগ স্পিনারের। ১৭.৫ ওভারে ৬২ রান তুলতেই শেষ ৮ উইকেট হারায় কলাবাগান।
আবাহনীর শুরুটাও ভালো হয়নি। দলকে ১১ রানে রেখেই রানআউট অধিনায়ক তামিম। লাঞ্চের আগেই দলীয় ৩৩ রানে আউট লিটন দাসও। চাপটা অবশ্য ধরে রাখতে পারেনি কলবাগান। তৃতীয় উইকেটে ওপেনার অভিষেক মিত্রকে নিয়ে ৫২ রান যোগ করেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান উদয় কৌল। কলাবাগানের ইনিংসের অধিকাংশ সময় উইকেটকিপিং করা কৌল এরপর নাজমুল হোসেনকে (শান্ত) নিয়ে ৫৭ রান যোগ করে ম্যাচের সমাপ্তি টানেন।
জুবায়েরের ম্যাচে ভুলে যাওয়ার মতো পারফরম্যান্স মাশরাফির। তুমুল হর্ষধ্বনির মধ্যে ব্যাটিংয়ে এসে ৬ বলে ১ রান করেছেন, ৪ ওভারের এক স্পেলে ১৮ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থেকে গেছেন কলাবাগানের অধিনায়ক।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
কলাবাগান কেসি: ৩৩.১ ওভারে ১৪০ (মাসাকাদজা ৪১, তাসামুল ৩৭; জুবায়ের ৬/৩৪, সাকলাইন ২/২৫)।
আবাহনী: ২৮.৩ ওভারে ১৪২/৩ (কৌল ৪৪*, নাজমুল ৩৫*, অভিষেক ৩২; সাব্বির ১/৭)।
ফল: আবাহনী ৭ উইকেটে জয়ী।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: জুবায়ের হোসেন।